২৮ কার্তিক  ১৪২৬  শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: অবশেষে রংপুরে পল্লি নিবাসের লিচুতলায় কবর দেওয়া হল বাংলাদেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি মহম্মদ এরশাদকে। মঙ্গলবার বিকেল ৫টা ৪৫ মিনিটে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাধিস্থ করা হয় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানকে।

[আরও পড়ুন-ব্যাংক আধিকারিককে গণধর্ষণের পর খুন, পাঁচজনের ফাঁসির সাজা বাংলাদেশে]

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির কবর দেওয়ার জায়গা নিয়ে কদিন ধরেই বিতর্ক চলছিল। তাঁর দলের কেউ কেউ চাইছিলেন, রাজধানী ঢাকাতে সমাধিস্থ করা হোক এইচ এম এরশাদকে। কিন্তু, রংপুরের জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা চাইছিলেন এরশাদকে যেন সেখানে কবর দেওয়া হয়। যদিও তাতে রাজি হচ্ছিলেন না এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদ-সহ অন্যরা। দুপুর আড়াইটার সময় রংপুরের কেন্দ্রীয় ইদগাহ মাঠে এরশাদের শেষকৃত্যের নমাজ হয়। তখন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদের এরশাদকে ঢাকায় কবর দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। এই কথা শুনে সেখানে উপস্থিত জনতা এর তীব্র প্রতিবাদ করেন। এরপরই তাঁদের দাবি মেনে রংপুরেই স্বামীকে কবর দেওয়ার সিদ্ধান্ত রওসন। এরফলে শেষপর্যন্ত জয়ী হল রংপুরের কর্মী-সমর্থকদের আবেগই।

রংপুর পুরনিগমের মেয়র ও জাতীয় পার্টির নেতা মোস্তাফিজার জানান, এরশাদের প্রতি রংপুরের মানুষের আবেগ ও ভালোবাসা দেখে আপ্লুত হন রওশন এরশাদ। তাই তাঁদের আবেগকে শ্রদ্ধা জানিয়ে রংপুরে কবর দেওয়ার বিষয়ে সম্মত হন তিনি।

[আরও পড়ুন- শেষবেলাতেও সঙ্গী বিতর্ক, এরশাদের সমাধিস্থল নিয়ে দ্বন্দ্ব কাটল না এখনও]

জাতীয় পার্টির তরফে প্রকাশিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শুধু স্বামীকে কবর দেওয়া নয়, নিজের মৃত্যুর পরেও রংপুরে সমাধিস্থ হওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন এরশাদের স্ত্রী রওসন। স্বামী পাশে তাঁর কবরের জন্য জায়গা রাখার অনুরোধ করেছেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং