৭ শ্রাবণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। তাই লাইফ সাপোর্ট সিস্টেমে রাখা হয়েছে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান মহম্মদ এরশাদকে। বর্তমানে ঢাকার সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় বৃহস্পতিবার বিকেল ৪ টে ১৫ মিনিটে তাঁকে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়। এরশাদের সুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে আর্শীবাদ প্রার্থনা করেছেন তাঁর স্ত্রী বেগম রওশন এরশাদ।

[আরও পড়ুন- আগামী বছরেই চালু হবে মেট্রো, যানজট মুক্তির আশায় দিন গুনছে ঢাকাবাসী]

বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটের সময় ঢাকা হাসপাতালের আইসিইউ-তে এরশাদকে দেখতে গিয়েছিলেন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মহম্মদ কাদের ও রওশন। ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, সুনীল শুভরায়, প্রাক্তন মেজর খালেদ আখতার-সহ বিভিন্ন নেতা-কর্মীরা। গত ২২ জুন বারিধারার প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসভবনে অসুস্থ হয়ে পড়েন এরশাদ। তাড়াতাড়ি তাঁকে ঢাকা সামরিক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে পৌঁছনোর পর শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি ঘটায় তাঁকে আইসিইউ-তে রাখা হয়।

বার্ধক্যজনিত শারীরিক সমস্যায় জর্জরিত ৯৩ বছর বয়সী এরশাদ গত কয়েকমাস ধরেই শয্যাশায়ী। রক্তে হিমোগ্লোবিন তৈরি না হওয়া, লিভারের সমস্যার মতো একাধিক জটিলতায় ভুগছেন তিনি। এর মধ্যে মঙ্গলবার বিকালে কাঁপুনি দিয়ে তাঁর প্রচণ্ড জ্বর আসে। সঙ্গে সঙ্গে সিএমএইচে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। সেখানে কয়েক ঘণ্টা থেকে রাতে আবার বারিধারার বাসভবনে ফেরেন বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদ। বুধবার সকালে ফের এরশাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। তখন তাঁকে আবার সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেই থেকে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে ভরতি রয়েছেন তিনি। তাঁর নিউমোনিয়া হয়েছে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন- প্রধানমন্ত্রী হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্রে যুক্ত ৯ বিএনপি নেতাকে মৃত্যুদণ্ড]

এরশাদের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে জাপ-এর মহাসচিব মসিউর রহমান রঙ্গা জানান, এরশাদের অবস্থা খুব একটা ভাল নয়। গায়ে প্রচণ্ড জ্বর। চিকিৎসকরা কাউকেই ভিতরে যাওয়ার অনুমতি দিচ্ছেন না। অন্য কক্ষে টিভি স্ক্রিনে তাঁর অবস্থা দেখানো হচ্ছে সমর্থকদের। অবস্থার উন্নতি না হলে এয়ার অ্যাম্বুল্যান্স করে তাঁকে সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়ার চিন্তাভাবনা চলছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং