BREAKING NEWS

২২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শুক্রবার ৫ জুন ২০২০ 

Advertisement

অমানবিক! খাবারে চুল থাকায় স্ত্রীকে নেড়া করল স্বামী

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: October 8, 2019 9:14 pm|    Updated: October 8, 2019 9:31 pm

An Images

ছবিটি প্রতীকী

সুকুমার সরকার, ঢাকা: স্বামীকে জলখাবারে দুধভাত খেতে দিয়েছিলেন এক মহিলা। কিন্তু, তার মধ্যে পড়েছিল একটি চুল। এর জেরে স্ত্রীকে মারধরের পাশাপাশি জোর করে তাঁর চুল কেটে নেড়া করল স্বামী। পাশবিক এই ঘটনাটি ঘটেছে বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিম দিকে অবস্থিত জয়পুরহাট এলাকায়। মঙ্গলবার গ্রামবাসীদের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই মহিলার স্বামী বাবলু মণ্ডল(৩৫)-কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: সম্প্রীতির বার্তা হাসিনার, ঘুরে দেখলেন রামকৃষ্ণ মিশনের দুর্গামণ্ডপ]

এপ্রসঙ্গে স্থানীয় পুলিশ প্রধান শাহরিয়ার খান বলেন, ‘মঙ্গলবার সকালে অভিযুক্ত বাবলুকে দুধভাত খেতে দিয়েছিলেন তাঁর স্ত্রী। কিন্তু, তার মধ্যে একটি চুল পড়ে থাকতে দেখে বাবলু। আর তারপরই স্ত্রীর সঙ্গে এই বিষয়টি নিয়ে ঝগড়া শুরু হয় তার। তুমুল বচসার মাঝেই একটি ব্লেড নিয়ে স্ত্রীর উপর চড়াও হয়। তারপর তাঁর মাথার সব চুল কেটে নেড়া করে দেয়।’

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত বাবলুর বিরুদ্ধে “স্বেচ্ছায় গুরুতর আঘাত করার” অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। এই অপরাধের জন্য তার সর্বোচ্চ ১৪ বছরের জেল হতে পারে। বাবলুর বিরুদ্ধে দায়ের করা অভিযোগে ২৩ বছরের স্ত্রীর প্রতি খারাপ ব্যবহার করার অভিযোগ রয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছ থেকে জানা গিয়েছে, মাঝে মধ্যেই যুবতী স্ত্রীকে বিভিন্ন ছুতোয় মারধর করত বাবলু। কিন্তু, খাবারে চুল থাকায় এভাবে তাঁকে নেড়া করে দেবে এটা কেউই ভাবতে পারেনি। এলাকার সবাই চাইছেন এই ঘটনার জন্য যেন বাবলুকে কড়া শাস্তি দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন:ছ’মাসে বাংলাদেশে ধর্ষণের শিকার ৪৯৬ জন শিশু! সমীক্ষা রিপোর্টে চাঞ্চল্য]

বাংলাদেশের বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে জড়িয়ে থাকা ব্যক্তিদের অভিযোগ, নারী নির্যাতন রুখতে বিভিন্ন ধরনের আইন থাকলেও মহিলাদের উপর অত্যাচারের ঘটনা দিন দিন বাড়ছে। এবছরের প্রথম ছ’মাস প্রতিদিন গড়ে তিনটি করে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। জানুয়ারি থেকে জুন মাসের মধ্যে মোট ৬৩০ জন মহিলা ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। যার মধ্যে ৩৭ জনকে ধর্ষণের পর নৃংশসভাবে খুন করে দুষ্কৃতীরা আর সাতজন মহিলা আত্মহত্যা করেন। এছাড়া ১০৫ জন মহিলাকে ধর্ষণের চেষ্টা হয়েছিল বলে বাংলাদেশের বিভিন্ন থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement