১২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

একটি ডিমের দাম ২৫ টাকা! সয়াবিন, পিঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধিতে নাজেহাল বাংলাদেশবাসী

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 18, 2022 5:45 pm|    Updated: August 18, 2022 5:45 pm

Massive price hike of daily products, Bangladesh people in trouble | Sangbad Pratidin

সুকুমার সরকার, ঢাকা: ডিম, পিঁয়াজ, সয়াবিন – লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধি প্রতিটি নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসেরই। বাজারে গিয়ে নাভিশ্বাস উঠছে বাংলাদেশবাসীর (Bangladesh)। রাজধানী ঢাকায় ডিমের অত্যধিক মূল্যবৃদ্ধির কারণে কমে গিয়েছে ডিম বিক্রি। এখন এক পিস ডিম বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকায়। ডিমের এহেন দাম বৃদ্ধির কারণে বিদেশ থেকে ডিম আমদানির কথা জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী। এর আগে ভারত (India) থেকে বাংলাদেশে ডিম আমদানি করা হত।

ক্রেতাদের অভিযোগ, নিত্যপ্রয়োজনীয় বাজার যখন ঊর্ধ্বমুখী, তখন লাফ দিয়ে বেড়েছে ডিমের (Egg) দাম। দেশের বাজারে ডিমের দাম অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন ক্রেতারা। হোটেলে প্রতি পিস ডিম বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকায়। ক্রেতারা মুখ ফিরিয়ে নেওয়ায় বিক্রি কমেছে দোকানদারদের। শুধু হোটেলে নয়, খামারেও কমে গিয়েছে ডিমের বিক্রি। খামারিরা বলছেন, পোলট্রি খাদ্যের দামের ঊর্ধ্বগতির কারণে ডিমের উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি পেয়েছে।

[আরও পড়ুন: পার্থ-অর্পিতার নামে ৬০ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, ৩০ ভুয়ো সংস্থা, ফার্ম হাউস, আদালতে দাবি ED’র আইনজীবীদের]

ঢাকার আমতলা বাজারের হোটেল ব্যবসায়ী আহম্মদ আলি জানান, আগে প্রতিদিন তার হোটেলে ৩০-৪০ পিস ডিম বিক্রি হতো। এখন ১০ পিসও ডিম বিক্রি করতে পারেন না। দাম বাড়ার কারণে প্রতিটি ডিম ২৫ টাকায় বিক্রি করছেন। ঢাকার ফকিরাপুল হোটেলের এক মালিক জানান, দাম বৃদ্ধির কারণে তিনি ডিম বিক্রি বন্ধ করেছেন। কেবল ভাজা করার জন্য কয়েক পিস রেখেছেন। তাও প্রতিটি ২৫ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে। বৃহস্পতিবার ঢাকার পাইকারি বাজারে চারটি ডিম ৪৪-৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দু’দিন আগেও ৪৮-৫০ টাকায় হালি বিক্রি হচ্ছিল। একটি বেসরকারি কোম্পানির মার্কেটিং অফিসার আহসান হাবিব বলেন, চাকরি করতে গিয়ে তাকে প্রায়ই হোটেলে খেতে হয়। সাধারণভাবে ডিম দিয়ে একবেলা ভাত খেতে গেলেও ৬৫-৭০ টাকা খরচ হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: কাশ্মীরে পুলিশের রাইফেল ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা, গুলিতে নিকেশ লস্কর জঙ্গি]

পোলট্রি মুরগির খাবারের অন্যতম উপাদান ভুট্টা প্রতি কেজি দাম বেড়ে ৩৫-৩৬ টাকা হয়েছে। এছাড়া সয়াবিন খৈল বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা কেজি। এছাড়া লাফিয়ে বেড়েছে পিঁয়াজের (Onion) দাম। গত চারদিন আগে ভারত থেকে আমদানি করা যেসব পেঁয়াজ পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ২৫ থেকে ২৬ টাকা দরে। আবার খুচরো ব্যবসায়ীরা সেই পেঁয়াজ কেজি প্রতি ২৮ থেকে ৩০ টাকা বিক্রি করেছেন। কিন্তু ভারত থেকে আমদানি করা সেই পেঁয়াজ বৃহস্পতিবার পাইকারি বাজারে বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৩৪ থেকে ৩৬ টাকা, যা খুচরো বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৩৮ থেকে ৪০ টাকা কেজি দামে। রোজকার একগুচ্ছ জিনিসপত্রের দামবৃদ্ধিতে নাজেহাল দশা সাধারণ মানুষের। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহম্মদ রিয়াজ উদ্দিন বলেন, ”কী কারণে পেঁয়াজের দাম হঠাৎ বেড়ে গেল, তা দেখা হবে। যদি ব্যবসায়ীরা কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে পেঁয়াজের দাম বাড়িয়ে বেচাকেনা করেন তবে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে