২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বাংলাদেশে অমুসলিম পড়ুয়াদের হিজাব পরানো চলবে না, দাবি হিন্দু মহাজোটের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: February 26, 2022 1:34 pm|    Updated: February 26, 2022 1:34 pm

Now Hijab row in Bangladesh | Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

সুকুমার সরকার, ঢাকা: এবার হিজাব বিতর্কের আঁচ বাংলাদেশে (Bangladesh)। দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অমুসলিম পড়ুয়াদের হিজাব পরানো চলবে না বলে দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট। শুধু তাই নয়, এই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ দাবি করেছে সংগঠনটি।

[আরও পড়ুন: যুগান্তকারী পদক্ষেপ, এবার তৃতীয় লিঙ্গের মানুষেরাও উত্তরাধিকার সূত্রে পাবেন সম্পত্তির ভাগ]

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় হিন্দু মহাজোট হিন্দু মহাজোট বক্তব্য পেশ করে। সংগঠনটি জানিয়েছে, দেশের দক্ষিণ জনপদ জেলা যশোরের আদ্-দ্বীন সকিনা মেডিক্যাল কলেজে অমুসলিম শিক্ষার্থীদের বাধ্যতামূলক হিজাব পরার নিয়ম চালু করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। অমুসলিম পড়ুয়াদের হিজাব পরানো চলবে না। এই নিয়ম বন্ধ করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হস্তক্ষেপ করুন। জোট আরও অভিযোগ করেছে, রাজধানী ঢাকায় সম্প্রতি একটি সমাবেশ থেকে বাংলাদেশের হিন্দু নারীদের শাঁখা সিঁদুর ও পুরুষদের ধুতি পরে রাস্তায় নামতে বাঁধা দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। জোট তারও প্রতিবাদ জানিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন হিন্দু মহাজোটের মুখপাত্র পলাশ কান্তি দে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি সুধাংশু চদ্র বিশ্বাস, ডিসি রায়, প্রভাস চন্দ্র, বীর মুক্তিযোদ্ধা রনজিৎ কুমার মৃধা, সমীর সরকার, অখিল মণ্ডল, ফনিভূষণ হাওলাদার, অ্যাডভোকেট হারাধন বিশ্বাস, ডা. নিমাই চন্দ্র আর্য্য, কেনেডি ঘোষ, জগন্নাথ হাওলাদার, আশীষ বাড়ই, মনোজ কুমার বিশ্বাস, কার্তিক কর্মকার, সুরঞ্জন মণ্ডল, রাজেশ নাহা, সজিব বৈদ্য, মাধব দাস প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, যশোরের আদ্-দ্বীন সকিনা মেডিক্যাল কলেজে অমুসলিম শিক্ষার্থীদেরও হিজাব বাধ্যতামূলক করার বিষয়টি কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশে হাই কোর্টে রায় রয়েছে, কাউকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে পোশাক পরতে বাধ্য করা যাবে না। এই আদেশ অমান্য করে চলেছে আদ্-দ্বীন সকিনা মেডিক্যাল কলেজ। তারা প্রতিষ্ঠানে ড্রেস কোড হিসেবে হিজাব বেছে নিয়েছে। ছাত্রীদের ভরতির সময় এই বিষয়ে লিখিত ‘সম্মতি’ নিচ্ছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। সংগঠনটি অভিযোগ জানায়, হিজাব পরতে অসম্মতি জানালে তাদের ভরতি করা থেকে বিরত রাখা হচ্ছে। ধর্মনিরপেক্ষ বাংলাদেশে আকিজ গ্রুপ পরিচালিত সকল প্রতিষ্ঠানে অমুসলিমদের হিজাব বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

মহাজোটের নেতৃবৃন্দ বলেন, মেডিক্যাল কলেজটির প্রতিষ্ঠাতা ডাক্তার শেখ মহিউদ্দিনের পিতা শেখ আকিজ উদ্দিন স্বাধীনতাবিরোধী ছিলেন। স্বাধীনতা সংগ্রামের সময় হিন্দু শরণার্থীদের সম্পদ লুটের অভিযোগ আছে তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে। পারিবারিকভাবে স্বাধীনতাবিরোধী মানসিকতায় বেড়ে ওঠা ডাক্তার শেখ মহিউদ্দিন ছাত্রজীবনে বরিশাল মেডিক্যাল কলেজে জামাতে ইসলামের ছাত্র সংগঠন ছাত্রশিবিরের নেতা ছিলেন এবং ছাত্র সংসদে ভিপি প্রার্থী ছিলেন। মেডিক্যাল কলেজটির আরেক মালিক যশোর-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিনের বিরুদ্ধেও সংখ্যালঘু নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে। পারিবারিকভাবে পাকিস্তানি ভাবধারায় বেড়ে ওঠা শেখ আফিল উদ্দিনের নির্যাতনে যশোরের শার্শা এলাকা থেকে কয়েক হাজার হিন্দু পরিবার ইতিমধ্যে ভারতে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে স্বাধীনতার মাসে মিডিয়া ও ইয়ুথ ডেলিগেশন টিম পাঠানোর নামে পাকিস্তানে হাইকমিশনের অপতৎপরতার কথা উল্লেখ করে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। একই সঙ্গে পাকিস্তানি অপতৎপরতা বন্ধের ব্যাপারে সরকারকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানানো হয়।

[আরও পড়ুন: করোনা আবহে ২০ দফা নির্দেশিকা দিয়ে বাংলাদেশে খুলে গেল স্কুল, উঠল সব বিধিনিষেধ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে