২৮ কার্তিক  ১৪২৬  শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৮ কার্তিক  ১৪২৬  শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের বহু নিদর্শন রয়েছে। সীমান্তের এপারে বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচারকে হাতিয়ার করে গেরুয়া শিবির ভোটেও ফায়দা লুটেছে। কিন্তু, ওপার বাংলার এবছরের দুর্গাপুজোর পরিসংখ্যান চমকে দিয়েছে। পরিসংখ্যান বলছে এবছর বাংলাদেশে পুজোর সংখ্যা অনেকটাই বেড়েছে। আর তা সম্ভব হয়েছে শেখ হাসিনা সরকারের সহযোগিতাতেই।

[আরও পড়ুন: প্রথা ভেঙে মহিলাদের নেতৃত্বেই দেবী আরাধনা বাংলাদেশের বিখ্যাত পুজোয়]

বিবিসি বাংলার খবর অনুযায়ী, বাংলাদেশে এবছর দুর্গাপুজো হচ্ছে মোট ৩১ হাজার ৩৯৮টি। তার মধ্যে প্রথমবার পুজো হচ্ছে মোট ৪৮৩টি। অর্থার, নতুন করে এবছর ৪৮৩টি দুর্গাপুজো হচ্ছে ওপার বাংলায়। যা সংখ্যালঘু হিন্দুদের জন্য খুব ভাল খবর। কারণ, কিছুদিন আগে পর্যন্ত বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচারের খবর পাওয়া গিয়েছে। এমনকী, এর আগে বিভিন্ন জায়গায় মূর্তি ভাঙার প্রবণতাও দেখা গিয়েছে। সেদিক থেকে দেখতে গেলে এবছর পুজো বাড়াটা বেশ আশাপ্রদ।

[আরও পড়ুন: নিজস্ব স্যাটেলাইটে সম্প্রচার শুরু বাংলাদেশ টেলিভিশনের, কমল ব্যয়ভার]

বাংলাদেশ পুজো উদযাপন কমিটিও পুজোর সংখ্যা বাড়ায় খুশি। সেই সঙ্গে শেখ হাসিনা সরকারের প্রশংসাও করছেন কমিটির কর্তারা। কমিটির এক কর্তার কথায়, অসাম্প্রদায়িক হাসিনা সরকার সংখ্যালঘুদের পাশে দাঁড়িয়ে উৎসবে নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। পুজোর সংখ্যা বাড়াটা তারই ফলশ্রুতি। ঢাকার পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলামের বক্তব্য, এবারের পুজোয় কোনও নাশকতার আশঙ্কা তারা করছেন না। তবে, বাহিনী যে কোনও পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে প্রস্তুত। কিছু কিছু পুজো মণ্ডপকে বিশেষ মণ্ডপ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সেই সব পুজো মণ্ডপে বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রতিটি মণ্ডপের সামনে সিসিটিভি বসানো হয়েছে। কোনও কোনও মন্দিরের গেটে মেটাল ডিটেক্টরও লাগানো আছে। তবে, এবার পুজোয় জঙ্গি হামলার সম্ভাবনা একেবারেই নেই। পুলিশের ব্যবস্থাপনায় সন্তুষ্ট পুজো কমিটির আয়োজকরাও। সব মিলিয়ে এপার বাংলার মতো, ওপার বাংলাতেও হিন্দু বাঙালিরা উৎসবের আনন্দে মেতে উঠেছেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং