BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

খাদ্যরসিকদের জন্য সুখবর, আগামী সপ্তাহের মধ্যেই কলকাতায় পৌঁছবে পদ্মার ইলিশ

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 12, 2020 11:47 am|    Updated: September 12, 2020 11:47 am

An Images

সুকুমার সরকার, ঢাকা: ইলিশপ্রেমীদের জন্য সুখবর। এবার ভারতে প্রায় দেড় হাজার টন ইলিশ পাঠানোর সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের। ২০১২ সাল থেকে ইলিশ রপ্তানি নিষিদ্ধ ছিল। তবে এবার ইলিশ (Hilsa) ব্যবসায়ীদের ডাকে সাড়া দিয়ে রপ্তানির ‘বিশেষ অনুমতি’ দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। ১৪৫০ টন ইলিশ আগামী সপ্তাহের মধ্যেই কলকাতায় পৌঁছবে।

বাংলাদেশ (Bangladesh) থেকে প্রায় ২০০ মাছ রপ্তানিকারক ভারতে মাছ রপ্তানির জন্য সরকারের কাছে অনুমতি চেয়েছিলেন। তার মধ্যে কেবল নজনকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এবার বাংলাদেশে পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা-সহ সাগরে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়েছে। যে মাছের দাম খুবই কম। এক কেজি ওজমনের ইলিশ বিকোচ্ছে ৮০০-১১০০ টাকা। আর তার কম ওজনের ইলিশ ৬০০-৭০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কাঙ্ক্ষিত দাম না মেলায় খুশি নন মৎস্যজীবীরা। তাই ইলিশ রপ্তানির সিদ্ধান্ত। ১৪৫০ টন ইলিশ আগামী সপ্তাহের মধ্যেই কলকাতায় পৌঁছবে। এটি বেনাপোল-হরিদাসপুর সীমান্ত দিয়ে পশ্চিমবঙ্গে যাবে। বাংলাদেশ থেকে যে ইলিশ ভারতে যাবে তা ৮০০-১২০০ ওজনের হবে। ওজনের উপর নির্ভর করে ইলিশের পাইকারি দাম প্রতি কেজি ৮০০ থেকে ১৪০০ টাকা হবে।

[আরও পড়ুন: বাংলাদেশকে বিনামূল্যে এক লক্ষের বেশি ভ্যাকসিনের ডোজ দেবে চিন!]

দেশের চাহিদা মেটাতে ২০১২ সাল থেকে বাংলাদেশ সরকার ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ রেখেছে। তবে গত বছর দুর্গাপুজোর সময় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (Sheikh Hasina) পশ্চিমবঙ্গে ৫০০ টন ইলিশ রপ্তানির ব্যবস্থা করেছিলেন। তবে ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও প্রতি বছর হাজার হাজার টন ইলিশ চোরাই পথে পশ্চিমবঙ্গ-সহ ভারতে পাচার হত। সে কারণে ইলিশের বাজার চাঙ্গা থাকত। এ বছরও পাচার হওয়ার সময় প্রায় ২ হাজার ৮০০ কেজি ইলিশ পাকড়াও করেছে বিএসএফ। তবে গত এক সপ্তাহ ধরে স্থল সীমান্ত দিয়ে ভারতে ইলিশ ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। এদিকে, পশ্চিমবঙ্গেও গত দু’বছর সেভাবে ইলিশ ধরা পড়ছে না। তার ফলে ইলিশপ্রেমীদের চাহিদা মেটানো সম্ভব হচ্ছে না।

[আরও পড়ুন: জেহাদি বধূ শামিমার নাগরিকত্বের পক্ষে আদালতের রায়ে তোলপাড় ব্রিটেন, পালটা মামলা সরকারের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement