৬ ফাল্গুন  ১৪২৬  বুধবার ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: মায়ানমারে সেনা অভিযানের মুখে জীবন বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছিল। কিন্তু এখানে এসেও মাদক পাচার থেকে মারামারি, সমস্ত কিছুতেই প্রথমসারিতে রয়েছে রোহিঙ্গারা। বাদ যাচ্ছে না নারী পাচার থেকে শুরু করে খুন-ডাকাতিও। শুক্রবার সন্ধেবেলাতেও টাকা নিয়ে বচসার জেরে নিজের ঘনিষ্ঠ বন্ধুকে খুন করল এক রোহিঙ্গা যুবক। ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনচিপ্রাং পুটিবনিয়া রোহিঙ্গা শিবিরের বাসিন্দা ছৈয়দুল আমিন(৩৬) ও মহম্মদ আবু তৈয়ব(৩৫) ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিল। বেশ কিছুদিন আগে আমিনের কাছ থেকে ১২০০ টাকা ধার নিয়েছিল তৈয়ব। কয়েকদিন মধ্যে তা ফিরিয়ে দেওয়ার কথা থাকলেও দেয়নি। বিষয়টি নিয়ে দু’জনের অনেকবার কথা কাটাকাটিও হয়।

[আরও পড়ুন: এনআরসি’র ভয়ে ভারত থেকে ৪৪৫ জন ফিরেছে বাংলাদেশে, জানাল বিজিবি]

 

তবে শুক্রবার সন্ধে সাতটা নাগাদ এই বিষয়টি নিয়ে গন্ডগোল চরম আকার ধারণ করে। বচসা চলার মাঝেই কাটারি দিয়ে আচমকা তৈয়বের ঘাড়ে কোপ মারে আমিন। আর রক্তাক্ত অবস্থায় তৈয়ব মাটিতে লুটিয়ে পড়তেই ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা বিষয়টি দেখতে তৈয়বকে হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানকার ডাক্তাররা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

[আরও পড়ুন: গোরস্থান থেকে গায়েব হয়ে যাচ্ছে কঙ্কাল, রহস্যের সমাধানে নাজেহাল পুলিশ]

 

এপ্রসঙ্গে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক(OC) প্রদীপ কুমার দাশ জানান,  মৃত আবু তৈয়ব উখিয়ার বালুখালি রোহিঙ্গা শিবিরের বাসিন্দা মহম্মদ আলমের ছেলে। তবে পুটিবনিয়া শিবিরে বোন হাসিনা বেগমের বাসায় থাকত। পুটিবনিয়া রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের ডি-৩ ব্লকের বাসিন্দা রশিদ আহমদের ছেলে ছৈয়দুল আমিন তাকে কোপ মেরে খুন করেছে বলে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এর ভিত্তিতে তদন্তে শুরু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, ১২০০ টাকা নিয়ে ঝামেলার জেরেই এই ঘটনা ঘটেছে। তবে তদন্ত শেষ হলেই পুরো সত্য সামনে আসবে। বর্তমানে পলাতক অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি চলছে। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং