BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

বাংলাদেশে দুটি উপজাতি সম্প্রদায়ের মধ্যে তুমুল গুলির লড়াই, মৃত কমপক্ষে ৬

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 7, 2020 1:30 pm|    Updated: July 7, 2020 1:30 pm

An Images

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বাংলাদেশে দুটি উপজাতি গোষ্ঠীর মানুষদের মধ্যে তুমুল গুলি লড়াইয়ের ফলে মৃত্যু হল কমপক্ষে ৬ জনের। মঙ্গলবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে ঢাকা থেকে ৫০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত পার্বত্য জেলা বান্দরবানে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বাংলাদেশের বান্দরবান জেলায় বিভিন্ন উপজাতি সম্প্রদায়ের মানুষদের মধ্যে প্রায় এলাকা দখলের লড়াই চলে। মাঝেমধ্যেই গুলির লড়াই হয়। মঙ্গলবার সকাল সাতটা নাগাদ একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফের গুলিযুদ্ধ শুরু হয় বান্দরবান (Bandarban) সদর উপজেলার রাজভিলা ইউনিয়নে বাগমারা বাজারে গুলিযুদ্ধ ঘটে। এর ফলে কমপক্ষে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। জখম হয়েছেন আরও তিন জন।

[আরও পড়ুন: দেশবিরোধী কর্মকাণ্ডের জের, জেলে পাঠানো হল ২১৯ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে]

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, নিহতরা সবাই জনসংহতি সমিতি (JSS)’র এমএন লারমা গ্রুপের সদস্য। তাঁদের নাম হল প্রজিত চাকমা (৬৫), ডেভিড মারমা (৪৫), জয় ত্রিপুরা (৪০), দীপেন ত্রিপুরা (৪২), রতন তঞ্চঙ্গ্যা (৫৫), বিমলকান্তি চাকমা ওরফে বিধু বাবু (৬০)। আর জখম তিনজন হলেন নিহার চাকমা, বিদ্যুৎ চাকমা ও হ্লাওয়াংসিং। হ্লাওয়াংসিং বান্দরবানের রাজভিলা ইউনিয়ন পরিষদের এক সদস্যের মেয়ে। এখনও পর্যন্ত তাঁদের উপর কারা হামলা চালিয়েছে তা জানা যায়নি।

এপ্রসঙ্গে বান্দরবানের পুলিশ সুপার জেরিন আক্তার বলেন, জখম তিনজনকে বান্দরবান সদর হাসপাতালে ভরতি করা হয়। পরে তাঁদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাজভিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খে অং প্রু মারমা নিহার ও বিদ্যুৎ চাকমাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠিয়েছেন।

[আরও পড়ুন: করোনাতঙ্ক কাটিয়ে স্বাভাবিকের পথে ইন্দো-বাংলাদেশ বাণিজ্য, শুরু হল পণ্যবাহী ট্রেন পরিষেবা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement