BREAKING NEWS

২৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  শনিবার ১০ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যাকাণ্ডে ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত দুই জঙ্গি পলাতক, বাংলাদেশে জারি রেড অ্যালার্ট

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: November 21, 2022 10:14 am|    Updated: November 21, 2022 1:41 pm

Two terrorists of murder accussed of Blogger Avijit Roy fled on the way to the court | Sangbad Pratidin

সুকুমার সরকার, ঢাকা: মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ছিনতাই কাণ্ডে বাংলাদেশ (Bangladesh) জুড়ে জারি করা হয়েছে রেড অ্যালার্ট। এই দু’জন ব্লগার অভিজিৎ রায় ও প্রকাশক আরেফিন দীপন হত্যা মামলার ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত আসামি। রবিবার দুপুরে ঢাকার (Dhaka) চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে পুলিশের চোখেমুখে বিষাক্ত কেমিক্যাল স্প্রে দিয়ে দুই জঙ্গিকে ছিনতাই করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এই ঘটনায় সীমান্তে রেড অ্যালার্ট (Red Allert) জারি করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এছাড়াও ঢাকার প্রতিটি প্রবেশ-প্রস্থান পথে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। বিভিন্ন চেকপোস্টে সন্দেহভাজনদের যানবাহন থামিয়ে তল্লাশি করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে পলাতক দুই জঙ্গিকে ধরতে তাদের ছবি বিভিন্ন থানায়, বিমানবন্দর ও স্থলসীমান্ত পথে পাঠানো হয়েছে। বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জানিয়েছেন, এই ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ব্লগার অভিজিৎ রায় ও প্রকাশক আরেফিন দীপন।

রবিবার অভিজিৎ ও দীপন হত্যামামলায় দোষী সাব্যস্ত দুই জঙ্গিকে আদালতে হাজির করা হয়েছিল। পুলিশ সদস্যরা তাদের নিয়ে আদালতে যাওয়ার পথে দুই জঙ্গি সদস্য পুলিশের চোখেমুখে কিল-ঘুষি মেরে বিষাক্ত কেমিক্যাল স্প্রে (Chemical Spray) করলে তারা অপ্রস্তুত হয়ে যান। এই ফাঁকে ওই দুই জঙ্গি সেখানে থাকা দুই মোটরবাইকে উঠে পালিয়ে যায়। পলাতক জঙ্গিদের মইনুল হাসান শামিম ও আবু সিদ্দিক সোহেল। শামিমের বাড়ি সুনামগঞ্জের ছাতকের মাধবপুর গ্রামে। সোহেলের বাড়ি লালমনিরহাটের আদিতমারীর ভেটোশ্বর গ্রামে। সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালে হাজির করে হাজতখানায় নেওয়ার সময় চারজনের মধ্যে দু’জনকে ছিনিয়ে নেয় জঙ্গিরা। এই ঘটনায় পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি (Investigating team)গঠন করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। কমিটিকে তিনদিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: বাংলার ব্লকে সংগঠনহীন বিজেপি, কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের ভরসা সেই মিঠুনই]

গত বছরের ১০ ফেব্রুয়ারি জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন হত্যা মামলায় ৮ আসামির মৃত্যুদণ্ড দেয় আদালত। ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর রাজধানীর শাহবাগে আজিজ সুপার মার্কেটের নিজের অফিসে জাগৃতি প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ফয়সল আরেফিন দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। ওই বছরই ফেব্রুয়ারিতে ঢাকা বইমেলা থেকে ফেরার পথে প্রকাশ্য রাস্তায় খুন হন ব্লগার অভিজিৎ রায়। সেই হত্যাকাণ্ডেও ৮ জনকে ফাঁসির সাজা দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন: লক্ষ্য মেরুকরণ, আন্তর্জাতিক গীতা মহোৎসবে ঘুরপথে ‘হিন্দু রাষ্ট্র’ ইস্যুতে জল মাপছে বিজেপি]

আসামিদের পালিয়ে যাওয়া ঘটনায় দায়দায়িত্ব নির্ধারণ ও ভবিষ্যৎ করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত সুপারিশ করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ডিএমডি’র গঠন করা কমিটিকে। অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনারের (ক্রাইম অ্যান্ড অপস্) নেতৃত্বে গঠিত এই কমিটিতে যুগ্ম কমিশনার (অপারেশনস), যুগ্ম কমিশনার (সিটিটিসি), উপকমিশনার (গোয়েন্দা, লালবাগ) ও অতিরিক্ত উপকমিশনার (সিআরও) সদস্য হিসেবে থাকবেন। জঙ্গি আবু সিদ্দিক সোহেল ও মইনুল হাসান শামিমকে ছিনিয়ে নেওয়া ঘটনার একটি সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ হয়েছে। সেখানে দেখা যায়, আদালতের ফটকের সামনে থেকে দুটি মোটরসাইকেলে করে আসা চার জঙ্গি তাদের ছিনিয়ে নেয়। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে