×

৫ চৈত্র  ১৪২৫  বৃহস্পতিবার ২১ মার্চ ২০১৯   |   শুভ দোলযাত্রা।

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকারঢাকা:  একাধিক প্রেম এবং বিয়ে। এটাই নেশা এবং পেশা এক বাংলাদেশি মহিলার। ডজনখানেক বিয়ের পর আর তার এই বিয়ে-বিয়ে খেলা চলল না। প্রতারণার অপরাধে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে আপাতত কারাবন্দি পলি নামে বিখ্যাত ওই মহিলা। তার ১২ জন স্বামীর সন্ধানও পেয়েছে পুলিশ। স্বামীদের জেরা করে বিস্তারিত তথ্য জানার চেষ্টা চলছে।

[রোহিঙ্গাদের পাশে চিন, বাংলাদেশের প্রস্তাব মেনে ‘সেফ জোন’ তৈরিতে সায়]

কখনও ম্যাজিস্ট্রেট, কখনও চিকিৎসক।  নানা সময়ে নানা পেশার পরিচয় দিয়ে একের পর এক বিয়ে করেছেন পলি নামে ওই মহিলা। বিয়ে তার পেশা হয়ে দাঁড়িয়েছিল। চালচলন, আদবকায়দা, ইংরাজিতে সাবলীলভাবে কথা বলতে পারায়, তাঁর সম্পর্কে সংশয়ের কোনও অবকাশই ছিল না। অভিজাত চলাফেরা দিয়ে পুরুষকে প্রতারণার জালে জড়িয়ে ফেলাই ছিল তাঁর মূল লক্ষ্য। গত ২ ফেব্রুয়ারি পলি নামে ওই মহিলার বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা দায়ের হয়। পুলিশ সূত্রে খবর, প্রতারক যুবতীকে আটক করার পর জেরায় চাঞ্চল্যকর সব তথ্য বেরিয়ে আসে। শাহনুর রহমান সিক্ত ওরফে সিক্ত খন্দকার ওরফে তাহামিনা আক্তার পলি বলে পরিচয় দেন। জানা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রনেতার সঙ্গে অভিনব গল্প সাজিয়ে বিয়ে করে বছর দুই আগে। বাংলাদেশ জনপ্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের এক কর্মকর্তা বলেন, বেশ কয়েক বছর আগে এই সিক্ত খন্দকার নিজেকে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে সাভারের এক যুবককে বিয়ে করেছিল। কিছুদিন পর তার আসল পরিচয় জানা গেলে ওই যুবক পিএটিসিতে অভিযোগ করেন। তারপর পলিকে পিএটিসি থেকে বহিষ্কার করা হয়। কিন্তু  সেখানেই থামেনি তার প্রতারণা। বরং আরও কৌশলী চালে প্রেমের ফাঁদে পুরুষদের জড়িয়েছে সে। পরবর্তী সময়ে সরকারি চাকরি পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি এবং জাহাঙ্গিরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভরতি করিয়ে দেওয়ার নামে কোটি টাকা, গয়না হাতিয়ে নিজের আত্মীয় শেখ শাহিন উল্লাহকে করে পলি। পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, জাহাঙ্গিরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ছিলেন বলে পরিচয় দিলেও আদৌ কখনই তিনি সেখানে পড়েননি। 

[‘জেহাদি বধূ’ শামিমাকে নিয়ে দেশে ফিরতে চায় ডাচ স্বামী]

তার সপ্তম শ্রেণিতে পড়া এক পুত্রসন্তান থাকলেও, প্রত্যেকবার বিয়ের সময়ই সে নিজেকে কুমারী বলে পরিচয় দিয়ে ভিন্ন নামে বিয়ে করেছেন। বিগত ১০ থেকে ১২ বছরে ধরে নিজেকে মেধাবী ছাত্রী, সরকারি আধিকারিক-সহ নানা পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করেছে পলি। এমনকী বাড়ির সদস্যদের নিয়েও তিনি ভুয়ো পরিচয় দিয়েছিলেন। তবে শেষবার, ঢাকার অদূরে সাভারে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে উত্তরায় ১২তম ব্যক্তিকে বিয়ে করার সময়ে ধরা পড়ে যান পলি ওরফে সিক্ত। তাঁর এমন কীর্তি শুনে রীতিমতো আঁতকে উঠছেন সকলে। কিন্তু কী উদ্দেশ্যে তাঁর এমন কাজ, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ১২ জন স্বামীকেও জেরা চলছে।

1dozen-husband

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং