৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার আগে বিয়ে, দম্পতির রহস্যমৃত্যু

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 20, 2016 9:10 am|    Updated: June 20, 2016 9:11 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: দাম্পত্য কলহের জেরে ফের রহস্যজনক মৃত্যু এক দম্পতির৷ বাড়ি থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার দু’জনের দেহ৷ প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার আগেই বিয়ে আর তার ছয় মাসের মধ্যেই এই মর্মান্তিক পরিণতি৷ দম্পতির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হওয়ার পর থেকেই দানা বাঁধা শুরু করেছে রহস্য৷ আত্মহত্যা নাকি নাবালিকা স্ত্রীকে মেরে আত্মঘাতী হয়েছে স্মামী, এই প্রশ্নই তাড়া করে বেড়াচ্ছে তদন্তকারীদের৷ মধ্যমগ্রাম কাণ্ডের রেশ কাটতে না কাটতেই দম্পতির রহস্যমৃত্যুর ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়৷

উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর এলাকায় ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় আকাশ দে (১৯) ও তিয়াশা পালের (১৭) মৃতদেহ৷ রবিবার সকালে অশোকনগরের কল্যাণগড় পালপাড়ার বাসিন্দা তিয়াশার বাড়ি থেকে দু’জনের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ৷ প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান, আত্মহত্যা করেছে দু’জনেই৷ তবে মৃত্যুর পিছনে রহস্য দেখছেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷ ছয় মাস আগে পালিয়ে বিয়ে করার পর সম্পর্কে চিড় ধরে দু’জনের৷ গত দু’মাস আলাদা থাকত তারা৷ হঠাত্‍ কী কারণে আত্মহত্যা করল ওই দম্পতি৷ এই প্রশ্নের উত্তর মেলেনি এখনও৷

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অশোকনগরের কচুয়ামোড়ের বাসিন্দা আকাশ৷ পাশের পাড়া কল্যাণগড়েই থাকত তিয়াশা৷ প্রায় দু’বছর ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্কের পর প্রায় ছয় মাস আগে দু’জনে পালিয়ে বিয়ে করে৷ অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার কারণে এই বিয়েতে আপত্তি জানান তাঁদের অভিভাবকরা৷ তবে বিয়ের ছয় মাস পর শ্বশুরবাড়ি ছেড়ে চলে যায় তিয়াশা৷ তিয়াশার পরিবার সূত্রে জানা যায়, বিয়ের পর থেকেই মতবিরোধ শুরু হয়েছিল দু’জনের মধ্যে৷ তিয়াশার পরিবারের অভিযোগ, তাকে মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার করত আকাশ ও তার পরিবার৷

তিয়াশার পরিবার সূত্রে জানা যায়, এদিন সকালে বাড়িতে একা ছিল তিয়াশা৷ বেলা এগারোটা নাগাদ তিয়াশার জামাইবাবু এসে আকাশকে বসে থাকতে দেখেন তিয়াশার ঘরে৷ আকাশের বাড়িতে বসে থাকার ঘটনাটি তিনি তিয়াশার বাবাকে ফোনে জানান৷ এর কিছু পরে তিয়াশার বাবা তাকে ফোন করে কোনও উত্তর পান না৷ ফোনের উত্তর না পেয়ে আবার তিনি তিয়াশার জামাইবাবুকে বাড়িতে যেতে বলেন৷ তিয়াশার জামাইবাবু জানান, বাড়িতে গিয়ে তিনি দেখেন বাইরে থেকে দরজা তালাবন্ধ করা৷ এর পর বাড়ির পিছনের পথ দিয়ে ঘরের ভিতর ঢুকে তিয়াশার জামাইবাবু দেখতে পান ফ্যানের সঙ্গে দু’জনের দেহ ঝুলছে৷ পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গামছা দিয়ে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেওয়া ছিল দেহ৷

তবে এই দম্পতির মৃত্যুর পিছনে রহস্য দেখছেন প্রতিবেশীরা৷ যার সঙ্গে সম্পর্কে চিড় ধরেছে তার সঙ্গে কেন আত্মহত্যা করবে তিয়াশা, এই নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই৷ নাকি সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার কারণে তাকে খুন করে নিজে আত্মহত্যা করল আকাশ, এই নিয়েও জল্পনা চলছে প্রতিবেশীদের মধ্যে৷ সম্প্রতি প্রেমে প্রত্যাখ্যান ও বিবাহবিচ্ছেদের কারণে মর্মান্তিক দুটি ঘটনা ঘটেছে বারাসত ও মধ্যমগ্রামে৷ এবার কি তার সঙ্গে জুড়বে অশোকনগরের নাম? ঘটনাটির তদন্ত শুরু করেছে অশোকনগর থানার পুলিশ৷ তবে ময়না তদন্তের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত দু’জনের মৃত্যুর কারণ সম্বন্ধে নিশ্চিত হওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement