২৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

অরিজিৎ গুপ্ত, হাওড়া: পুলিশের উপর হামলা করে গা ঢাকা দিতে চেয়েছিল দুই দুষ্কৃতী। কিন্তু শেষরক্ষা আর হল না। আসানসোল থেকে জামসেদপুর পালানোর পথে হাওড়ার জগাছায় পুলিশের হাতে ধরা পড়ে গেল অভিযুক্ত দুই যুবক। সোমবার রাত আটটা নাগাদ আসানসোল পুলিশ জগাছা পুলিশের সাহায্যে সোনু সিং এবং বীরেন্দ্র সিং নামে দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে। আজ তাদের ট্রানজিট রিমান্ডে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে আসানসোলে। পুলিশ সূত্রে খবর, ঘটনায় সোনু সিং মূল অভিযুক্ত। দু’জনেরই বাড়ি জামসেদপুরে।
ঘটনা সোমবার ভোরের। ওইদিন আসানাসোল স্টেশন রোডে কর্তব্যরত ছিলেন আসানসোল দক্ষিণ থানার এসআই সন্দীপ পাল, কনস্টেবল অরিজিৎ সামন্ত ও এক সিভিক ভলান্টিয়ার। সেই সময় এক অটোচালক তাঁদের কাছে গিয়ে অভিযোগ জানান যে তিন ব্যক্তি তাঁর অটোয় চড়ে এসেছেন, কিন্তু ভাড়া নিয়ে সমস্যা হচ্ছে। তাই কর্তব্যরত পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি। অটোচালকের কথা শুনে ওই তিন ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে পুলিশ। কথায় অসংগতি থাকায় তাঁদের থানায় নিয়ে যেতে চান এসআই সন্দীপ পাল। অভিযোগ, নানা অজুহাতে পুলিশ আধিকারিকদের এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে তিনজন। কিন্তু পুলিশের সন্দেহ বাড়তে থাকায় তাঁরা জোর করেই গাড়িতে তোলার চেষ্টা করেন।

[আরও পড়ুন: উপনির্বাচনে হারের ময়নাতদন্ত, তৃণমূলস্তরে যাচ্ছেন বিজেপির রাজ্য নেতারা]

উপায়ান্তর না দেখে পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে তখন সন্দীপ পাল এবং অন্যান্য পুলিশ কর্মীদের লক্ষ্য করে লঙ্কার গুঁড়ো ছিটিয়ে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। ২ রাউন্ড গুলিও চালায়। দুষ্কৃতীদের সঙ্গে পুলিশ কর্মীদের ধস্তাধস্তি হয়। এরপর পুলিশ বাহিনী থানায় ফিরলে বোঝা যায়, এসআই সন্দীপ পালের গুলি লেগেছে। তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে ভরতি করা হয় এক বেসরকারি হাসপাতালে। আপাতত সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন।

এদিকে, এসআইয়ের উপর গুলি চালিয়ে অভিযুক্তরা আসানসোল থেকে পালিয়ে যাওয়ায় পুলিশের একটি দল তাদের পিছু নেয়। পুলিশ সূত্রে খবর, নিজেদের বাড়ি জামসেদপুর যাওয়ার চেষ্টা করছিল মূল অভিযুক্ত সোনু ও তার সঙ্গী বীরেন্দ্র। কিন্তু হাওড়া ঢুকতেই তাদের নাগাল পায় আসানসোল পুলিশ। জগাছার কাছ থেকে সোমবার রাতেই তাদের গ্রেপ্তার করে। অভিযোগ, সেসময়ও তারা পুলিশের নাগাল থেকে বেরিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। আজ তাদের আসানসোলের আদালতে পেশ করার সম্ভাবনা।

[আরও পড়ুন: দুর্নীতি নাকি অসুস্থতা? বীরভূম জেলা পরিষদের সভাধিপতির ছুটির কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং