BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাহস জোগাচ্ছেন করোনাজয়ীরা, রাজ্যে সুস্থতার হার প্রায় ৬৮%

Published by: Sulaya Singha |    Posted: July 29, 2020 9:00 pm|    Updated: July 29, 2020 9:07 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ট্রেসিং, ট্র্যাকিং ও টেস্টিংই হাতিয়ার। এই তিন অস্ত্রেই শক্ত হাতে করোনার বিরুদ্ধে লড়ছে গোটা দেশে। একলাফে অনেকখানি বাড়ানো হয়েছে করোনা পরীক্ষার সংখ্যা। নয়ডা, মুম্বই ও কলকাতায় তৈরি হয়েছে করোনা টেস্টিং ল্যাবও। ফলে দ্রুত কোভিড আক্রান্ত চিহ্নিতকরণ করা সম্ভব হচ্ছে। আর তার যে সুফল মিলছে, তা পরিসংখ্যানেই স্পষ্ট। দেশের মতোই বাংলাতেও গত কয়েকদিন ধরে সুস্থতার গ্রাফ উর্ধ্বমুখী। বুধবারও জানা গেল, একদিনে রাজ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২০৯৪ জন।

রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ২,২৯৪ জন। যা গতকালের তুলনায় সামান্য বেশি। এর মধ্যে শুধু কলকাতাতেই ৬৮৮ জনের শরীরে থাবা বসিয়েছে মারণ ভাইরাস (Coronavirus)। সংক্রমিতের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে উত্তর ২৪ পরগণা। গত ২৪ ঘণ্টায় সে জেলায় ৫৫৪ জনের শরীরে ভাইরাসের হদিশ মিলেছে। ফলে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬৫ হাজার ২৫৮-য়। স্বাভাবিকভাবেই বেড়েছে অ্যাকটিভ কেসও। বর্তমানে রাজ্যে অ্যাকটিভ কেস ১৯ হাজার ৬৫২টি। তবে এদিনও সুস্থ হয়ে উঠেছেন দু’হাজারেরও বেশি মানুষ। শুধুমাত্র কলকাতাতেই একদিনে সুস্থ ৬৭৭ জন। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৪ হাজার ১১৬ জন। স্বাস্থ্যদপ্তরের রিপোর্ট অনুযায়ী, বাংলায় সুস্থতার হার ৬৭.৬০ শতাংশ। করোনাজয়ীরাই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে শক্তি জোগাচ্ছে।

[আরও পড়ুন: টিনের চালে মাথার খুলি, ঘরের ভিতর হাড়গোড়, হাড়হিম করা কাণ্ড শিলিগুড়িতে]

যদিও এখনও এই অদৃশ্য ভাইরাস প্রাণ কেড়ে চলেছে বহু মানুষের। গত ২৪ ঘণ্টাতেই যেমন মৃত্যু হয়েছে ৪১ জনের। ফলে বাংলায় মোট করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১,৪৯০। এর মধ্যে তিলোত্তমা করোনা প্রাণ নিয়েছে ৭২৩ জনের। একদিনে মারা গিয়েছেন মোট ১৭ জন। উত্তর ২৪ পরগণায় করোনার বলি মোট ৩১৫ জন।

তবে গত কয়েকদিনে উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে নমুনা টেস্ট। গত ২৪ ঘণ্টাতেই যেমন নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৭,১৪৪ জনের। এখনও পর্যন্ত মোট ৮ লক্ষ ৫৬ হাজার ৩৫৫ জনের স্যাম্পেল টেস্ট হয়েছে। সংক্রমণের চেন ভাঙতে আগস্টেও সপ্তাহে দুদিন করে সম্পূর্ণ লকডাউন জারি থাকবে। টেস্ট বাড়িয়ে ও লকডাউনে ইতিবাচক ফল মিলবে বলেই আশা বিশেষজ্ঞদের।

[আরও পড়ুন: লকডাউনে জরুরি পরিষেবা দিতে গিয়ে পুলিশের মার খেলেন করোনা যোদ্ধা, ক্ষুব্ধ সহকর্মীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement