BREAKING NEWS

০৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  সোমবার ২৩ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

যাত্রী সেজে গাড়ি লুটের চেষ্টা, বর্ধমান যাওয়ার পথে চালককে খুন ৪ দুষ্কৃতীর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 8, 2018 4:10 pm|    Updated: July 8, 2018 4:10 pm

A car driver allegedly murdered by 4 passengers on the way to Burwan

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: গাড়ি লুটের উদ্দেশ্যে খুন৷ প্রচণ্ড গতিতে গাড়ি চালিয়ে পালানোর সময়ে দুর্ঘটনা৷ গাড়ি ফেলে চম্পট দুষ্কৃতীদের৷ শক্তিগড়ে গাড়ি চালক খুনের ঘটনার তদন্তে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য মিলেছে৷ তদন্তকারীদের দাবি, হাওড়া থেকে বর্ধমান যাওয়ার জন্য গাড়িতে ওঠে চারজন৷ তাদের আচরণে সন্দেহ হয় গাড়ি চালকের৷ তাই ওই চারজনের আধার কার্ড ও ভোটার কার্ডের ছবি তুলে বাড়ির লোককে পাঠিয়েছিলেন তিনি৷ সেই সূত্র ধরেই ওই চারজনের সন্ধানে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ৷

[শিলিগুড়ির ফুলবাড়ি থেকে উদ্ধার ১০ কেজি চোরাই সোনা, গ্রেপ্তার ২ পাচারকারী]

ঘটনার সূত্রপাত গত শুক্রবার৷ গাড়ি চালকের নাম কুন্দন কুমার ওরফে কুন্দন মহারাজ৷ হাওড়ার লিলুয়ার বাসিন্দা বছর চব্বিশের ওই যুবক পেশায় গাড়ি চালক৷ পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার দিন হাওড়া স্টেশন লাগোয়া ডবসন রোডে গাড়ি নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন কুন্দন৷ চারজন যুবক বর্ধমান যাওয়ার জন্য তাঁর গাড়ি ভাড়া নেয়৷ যাত্রীদের নিয়ে বর্ধমানের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে যান ওই গাড়ি চালক৷ কুন্দন যখন বর্ধমানের পথে, তখন তাঁকে ফোন করেন এক বন্ধু৷ তিনি জানিয়েছিলেন, বর্ধমানে ওই চারজনকে নামিয়ে দিয়ে হাওড়া ফিরবেন৷ পরিবারের লোকেদের দাবি, বহুবার ফোন করেও কুন্দনের সঙ্গে আর যোগাযোগ করতে পারেননি তাঁরা৷ তিনিও বাড়িতে ফোন করেননি৷ শুক্রবার রাতে বর্ধমানে শক্তিগড়ে ২ নং জাতীয় সড়ক থেকে কুন্দন কুমারের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ৷ ঘটনাস্থল থেকে প্রায় ১০ কিমি দূরে খোঁজ মেলে গাড়িটিরও৷ ময়নাতদন্তের পর শনিবার মৃতদেহ তুলে দেওয়া হয়৷ বর্ধমান থানায় খুনের অভিযোগ করেছেন মৃতের পরিবারের লোকেরা৷

জানা গিয়েছে, উ্দ্ধারের সময় গাড়িটির অক্ষত ছিল না৷ সামনে অংশ দুমড়ে-মুচড়ে গিয়েছিল৷ গাড়ি থেকে একটি ছুরিও পাওয়া গিয়েছে৷ তদন্তকারীদের দাবি, লুটের উদ্দেশ্যে গাড়ির ভিতরেই কুন্দনকে খুন করে ওই চার দুষ্কৃতীরা৷ মৃতদেহটি জাতীয় সড়কে ফেলে দিয়ে গাড়ি যখন তারা পালাচ্ছিল, তখনই ঘটে দুর্ঘটনা৷ দুর্ঘটনায় গাড়ির সামনে অংশটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়৷ পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে গাড়িটি ফেলে পালায় দুষ্কৃতীরা৷ মৃতের পরিবারের দাবি, গাড়িতে ওঠার পর থেকে ওই চারজনের আচরণে সন্দেহ হয়েছিল কুন্দনের৷ তাই অভিযুক্তদের ভোটার ও আধার কার্ডের ছবি তুলে বাড়ির লোককে হোয়াটসঅ্যাপ করেছিলেন তিনি৷ সেই ছবিগুলি পুলিশকে দিয়েছেন কুন্দন কুমারের পরিবারে লোকেরা৷ সেই সূত্র ধরেই চার অভিযুক্তর সন্ধানে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ৷ হাওড়ার ডবসন রোডের যে এলাকা থেকে গাড়িটি ভাড়া নেওয়া হয়েছিল, সেই এলাকার সিসিটিভি ফুটেজও খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা৷

ছবি: মুকুলেসুর রহমান

[রথ নয়, এসইউভি গাড়িতে চেপে মাসির বাড়ি যাবেন জগন্নাথ, বলরাম ও সুভদ্রা!]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে