২২  শ্রাবণ  ১৪২৯  সোমবার ৮ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মিলনকালে রহস্যভেদ! পুরুলিয়ায় বনদপ্তরের ট্র্যাপ ক্যামেরায় ধরা পড়ল জোড়া চিতাবাঘ

Published by: Sayani Sen |    Posted: July 4, 2022 10:17 am|    Updated: July 4, 2022 6:27 pm

A male and female leopard seen in trap camera footage in Purulia । Sangbad Pratidin

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: সম্ভাবনা ছিলই। এবার বনবিভাগের ট্র্যাপ ক্যামেরায় ধরা পড়লো মাদি চিতাবাঘ (Leopard)। তাও আবার দিনের আলোয়। একেবারে ভোরের দিকে। ফলে পুরুলিয়ার কোটশিলা বনাঞ্চলের সিমনি বিটের জাবর পাহাড়-জঙ্গলে জোড়া চিতাবাঘের রহস্যভেদ হল। এবং তার কিনারা হল বন্যপ্রাণের মিলনকালেই! বছর দুই ধরে নানা জল্পনার পর।

একই ট্র্যাপ ক্যামেরায় দুটি চিতাবাঘের পৃথক পৃথক ছবি। একটি রাতের অন্ধকারে। আরেকটি ভোরের আলোয়। গত ২৭ জুন, রাত ১ টা ৫৫ মিনিট ৪১ সেকেন্ডে যে চিতাবাঘের ছবি ট্র্যাপ ক্যামেরায় বন্দি হয় তা একেবারে হৃষ্টপুষ্ট। যা বারবার ধরা দিয়েছে শিকারের সামনে। আবার কখনও একা, কখনও আবার শিকার ভক্ষণে।

Male Leopard

আর যে ছবি ভোরের আলোয় ধরা পড়েছে, তা গত ২৯ জুন ভোর চারটে ৫৮ মিনিট ৩৮ সেকেন্ডের। এই চিতাবাঘটি মাদি। পুরুষ চিতাবাঘের মতো হৃষ্টপুষ্ট নয়। খানিকটা লম্বাটে গড়নের। সেইসঙ্গে উচ্চতাতেও ছোটl পুরুষ ও মাদি চিতাবাঘের পার্থক্য যেমনটা হয় ঠিক তেমনই।

Leopard

[আরও পড়ুন: OMG! অণ্ডকোষ বেজেই চলেছে বাঁশির মতো! আজব অসুখে চরম বিপাকে বৃদ্ধ]

পুরুলিয়া বনবিভাগের ডিএফও দেবাশিস শর্মা বলেন, “জোড়া চিতাবাঘের সম্ভাবনা ছিলইl ট্র্যাপ ক্যামেরায় ধরা পড়া ছবির মধ্য দিয়ে সেটা অনেকাংশই নিশ্চিত হয়ে গেল। তবুও আমরা সম্পূর্ণভাবে নিশ্চিত হতে বর্ষার মরশুমে পায়ের ছাপ নেব। সেই সঙ্গে ট্র্যাপ ক্যামেরার মাধ্যমে ওই জোড়া চিতাবাঘ এক ফ্রেমে ধরা দেয় কিনা, সেই নজরদারি চলছে ধারাবাহিকভাবে।”

সর্বপ্রথম চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি রাত ন’টা ৫১মিনিটে ওই ট্র্যাপ ক্যামেরায় ধরা দিয়েছিল হৃষ্টপুষ্ট চিতাবাঘটি। তার ঠিক দু’মাস পরে ২০ এপ্রিল রাত ৭ টা ২০ মিনিটে ফের ট্র্যাপ ক্যামেরায় ধরা দেয় ওই পুরুষ চিতাবাঘটিই। আসলে ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে এই জাবর গ্রামের জঙ্গলে বনজ সম্পদ কুড়োতে গিয়ে এক মহিলা নিজের চোখে দেখেছিলেন জোড়া চিতাবাঘের সঙ্গে শাবক।

Simni-Forest

যদিও ওই বন্যপ্রাণের চোখে পড়েননি মহিলা। কোনক্রমে জঙ্গল থেকে পালিয়ে বেঁচেছিলেন তিনি। তারপর থেকে এলাকায় চাউর হয়ে যায় সিমনি বিটের জাবর পাহাড়-জঙ্গলে জোড়া চিতাবাঘ রয়েছে। পুরুলিয়া বনবিভাগ প্রথম থেকেই এই জোড়া চিতা বাঘের সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দেয়নিl এবার সেই সম্ভাবনাই সত্যি হয়ে গেলl সেইসঙ্গে সিমনি বিটের জঙ্গলে এই জোড়া চিতাবাঘ প্রমাণ করে দিল কোটশিলা বনাঞ্চলের জঙ্গল ক্রমশ বাড়ছেl তাছাড়া চিতাবাঘের নিশ্চিন্ত জীবনযাপনের পরিবেশও তৈরি হয়েছে এই বনাঞ্চলে।

Simni Forest

ট্র্যাপ ক্যামেরায় ধরা পড়া এই জোড়া চিতাবাঘের ছবি এলাকার বাসিন্দারা দেখতে পাওয়ায় জাবর গ্রামের বাসিন্দা রামবিলাস হেমব্রম বলেন, “বনদপ্তরের ট্র্যাপ ক্যামেরায় জোড়া চিতাবাঘের ছবি দেখতে পেয়েছি। দুটি চিতাবাঘ আমাদের জাবর গ্রামের পাহাড়-জঙ্গলেই রয়েছে। মাঝেমধ্যে গরু, ছাগল খেয়েই চলেছেl তবুও আমরা চাই ওই দুটি বাঘ এই জঙ্গলে ভালভাবে থাকুক। এখন বর্ষায় গোপন জীবনযাপনের সময় আমরা সেভাবে জঙ্গলেও যাচ্ছি না।”

হয়তো গ্রামবাসীদের এমন বার্তাতেই প্রায় গত দু’বছর ধরে গবাদি পশু,বন্য শুয়োর শিকার করেই যাচ্ছে ওই জোড়া চিতাবাঘ। তবে তা নিয়ে গ্রামবাসীদের মৃদু ক্ষোভ-বিক্ষোভও নেই। কোটশিলা বনাঞ্চলের দাবি, বন্যপ্রাণ নিয়ে বনদপ্তরের ধারাবাহিক সচেতনতারই সুফল। তবে এই জোড়া চিতাবাঘ শুধু কোটশিলা বনাঞ্চলের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই। লাগোয়া ঝাড়খন্ডের বোকারো রেঞ্জের যুগিডি, আড়াসারাম, ত্রিয়নালা এলাকাতেও একের পর এক গবাদি পশু, বন্য শুয়োর মেরেই চলেছেl ফলে বাংলা-ঝাড়খণ্ডের এই বিস্তীর্ণ জঙ্গল রীতিমতো চষে বেড়াচ্ছে ওই জোড়া চিতাবাঘ।

দেখুন ভিডিও। 

 

[আরও পড়ুন: সম্পর্কের টানাপোড়েন নাকি অভাব? গড়িয়াহাট উড়ালপুল থেকে ঝাঁপ তরুণীর, কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে