৩ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৭ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo ফিরে দেখা ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৭ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

চন্দ্রজিৎ মজুমদার, কান্দি: কন্যাসন্তান হওয়াই যেন একমাত্র ‘অপরাধ’। তার জেরে নিজের তিন মাসের শিশুকন্যাকে গলা টিপে খুন করে নদীর ধারে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠল বাবার বিরুদ্ধে। গ্রামবাসীরা অভিযুক্তকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। ভরতপুর থানার পুলিশ অভিযুক্ত বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে। মর্মান্তিক এই ঘটনার সাক্ষী মুর্শিদাবাদের আঙ্গারপুর গ্রামের পশ্চিম পাড়া। 

[আরও পড়ুন: কাটমানি খেয়ে পড়ুয়াদের নিম্নমানের পোশাক দেওয়ার অভিযোগ, উত্তেজনা বনগাঁর স্কুলে]

গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, “মিকুল শেখ আঙ্গারপুর গ্রামের পশ্চিম পাড়ায় থাকে। রিক্সা চালিয়ে সংসার চালায় সে। প্রথমবার বিয়ের কিছুদিন পরেই হিজলের রানিপুর গ্রামের এক মহিলার সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করে সে। তাঁকেও বিয়ে করে বাড়িতে নিয়ে আসে ওই যুবক। দুই স্ত্রীকে নিয়ে তার টানাপোড়েন চলছিল। তার মাঝেই আবার মিকুলের দ্বিতীয় স্ত্রী একটি কন্যাসন্তানের জন্ম দেয়। কন্যাসন্তান জন্মের পরই তাঁদের সাংসারিক অশান্তি বাড়তে থাকে।

[আরও পড়ুন: বনগাঁর ঠাকুরবাড়িতে বোমাবাজি, তরজায় জড়াল শান্তনু-মমতাবালার অনুগামীরা]

মিকুলের দ্বিতীয় স্ত্রী রেহেনা বিবি ভরতপুর থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে মেয়েকে খুনের অভিযোগ জানায়। তিনি বলেন, “কন্যাসন্তান হওয়ায় আমার স্বামী তিন মাসের মেয়েকে প্রাণে মারার আগেও চেষ্টা করেছিল। কিন্তু সফল হয়নি। বুধবার সকালে যখন স্নান করছিলাম তখন আমার স্বামী ছোট্ট মেয়েকে নিয়ে নদীর ধারে গিয়ে গলা টিপে খুন করে। গ্রামের লোকেরাই শিশুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপরই তাকে মৃত বলে জানায় চিকিৎসকরা। আমি স্বামীর শাস্তি চাই।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং