BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীকে ‘গণধর্ষণ’, ভাঙচুরের পর অভিযুক্তের বাড়িতে আগুন লাগাল উত্তেজিত জনতা

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: September 4, 2020 5:41 pm|    Updated: September 4, 2020 5:44 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের বিকৃত লালসার শিকার নাবালিকা। এবার ষষ্ঠশ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল ২ প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে। নারকীয় ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার (Nadia) হাঁসখালিতে। ঘটনার জেরে বৃহস্পতিবার অভিযুক্তের বাড়িতে ভাঙচুর চালায় উত্তেজিত জনতা। আগুনও ধরিয়ে দেওয়া হয়।

ঘটনার সূত্রপাত ২৯ আগস্ট। অভিযোগ, ওইদিন রাতে শৌচাগারে যাওয়ার সময় ওই নাবালিকাকে জোর পূর্বক ফাঁকা জায়গায় নিয়ে যায় প্রতিবেশী বৈদ্যনাথ বিশ্বাস ও মঙ্গল মণ্ডল। বেশ কিছুক্ষণ পেরনোর পর মেয়ের চিৎকার শুনে ঘর থেকে বের হন নাবালিকার বাবা। তাঁর অভিযোগ, মঙ্গল ও বৈদ্যনাথ সেখানেই ধর্ষণ করে নাবালিকাকে। কিন্তু তাঁকে দেখতে পেয়েই চম্পট দেয় অভিযুক্তরা। এরপর সংজ্ঞাহীন অবস্থায় মেয়েকে উদ্ধার করেন ওই ব্যক্তি। এখনও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নির্যাতিতা। জানা গিয়েছে, ঘটনার দিনই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করা হয় হাঁসখালি থানায়। এরপরই অভিযুক্ত মঙ্গলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: ভিনরাজ্যে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ, মাথা নেড়া করে অত্যাচার, বসিরহাট থানায় অভিযোগ কিশোরীর]

কিন্তু দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও অপর অভিযুক্ত বৈদ্যনাথকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। যা নিয়ে ক্ষোভ জমেছিল গ্রামবাসীদের মধ্যে। সেই কারণেই বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বৈদ্যনাথের বাড়িতে ভাঙচুর চালায় উত্তেজিত জনতা। আগুনও ধরিয়ে দেওয়া হয়। ঘটনায় কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় গ্রাম। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে যায় হাঁসখালি থানার পুলিশ। দীর্ঘক্ষণের চেষ্টায় আয়ত্তে আসে পরিস্থিতি। তবে এখনও উত্তেজনা জারি ওই এলাকায়।

[আরও পড়ুন: ভিনরাজ্যে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ, মাথা নেড়া করে অত্যাচার, বসিরহাট থানায় অভিযোগ কিশোরীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement