১৭ চৈত্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ৩১ মার্চ ২০২০ 

Advertisement

দোকান থেকে শাড়ি চুরির অভিযোগ, ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে মহিলাকে বেধড়ক মার

Published by: Sayani Sen |    Posted: February 20, 2020 3:03 pm|    Updated: February 20, 2020 3:59 pm

An Images

জ্যোতি চক্রবর্তী, বসিরহাট: চোর সন্দেহে আবারও গণপিটুনি। এবার নির্যাতনের শিকার এক মহিলা। ঘটনাস্থল উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাটের ভ্যাবলা পাইকারি মার্কেট। চোর সন্দেহ ওই মহিলাকে ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে বেধড়ক মারধর করা হয়। বেশ কিছুক্ষণ পর বসিরহাট থানার পুলিশ তাঁকে উদ্ধার করে। জখম হওয়ায় আপাতত চিকিৎসা চলছে তাঁর। এরপরই ওই মহিলাকে জেরা করে অভিযোগ আদৌ সত্য কি না, তা খতিয়ে দেখবে।

ভ্যাবলা পাইকারি মার্কেটে দোকান রয়েছে আয়ুব আলি সর্দার নামে স্থানীয় এক বাসিন্দার। তাঁর দোকানে শাড়ি, জামা, প্যান্ট বিক্রি হয়। তাঁর অভিযোগ, মাঝবয়সি ওই মহিলা দোকান থেকে ১০০০ টাকা দরের অন্তত পাঁচটি তাঁতের শাড়ি চুরি করেছে। চোর সন্দেহে ওই মহিলার উপর প্রথমে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করেন ওই ব্যবসায়ী। তাঁর চিৎকারে অন্যান্য লোকজন জড়ো হয়ে যায়। চুরি করেননি বলে বারবার জানালেও, মহিলার কথায় কান দেয়নি কেউই। পরিবর্তে তাঁর হাত একটি ল্যাম্পপোস্টের সঙ্গে বেঁধে ফেলা হয়। প্রথমে চুলের মুঠি ধরে বেধড়ক মারধর করা হয় তাঁকে। কিল, চড়, ঘুসিও মারা হয় ওই মহিলাকে। বেশ কিছুক্ষণ ধরে চলে গণপিটুনি। এদিকে, এই খবর লোকমুখে বসিরহাট থানার পুলিশের কাছে পৌঁছয়। প্রায় সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশবাহিনী। মহিলাকে উদ্ধার করেন পুলিশকর্মীরা।

[আরও পড়ুন: একের পর এক গন্ডার-হাতির রহস্যমৃত্যু, জলদাপাড়া অভয়ারণ্যে ছড়াল অ্যানথ্র্যাক্স আতঙ্ক]

গণপিটুনিতে বেশ চোট পেয়েছেন ওই মহিলা। প্রাথমিক চিকিৎসাও করা হয়েছে তাঁর। পুলিশ সূত্রে খবর, একটু সুস্থ হওয়ার পরই ওই মহিলাকে জেরা করা হবে। তাতেই নিশ্চিতভাবে জানা যাবে আদৌ ওই ব্যবসায়ীর অভিযোগ সত্যি কি না। গণপিটুনিতে যারা জড়িত, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেই জানিয়েছে বসিরহাট থানার পুলিশ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement