১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  শনিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মহেশতলায় মা ও সন্তানের রহস্যমৃত্যু, ঘর থেকে উদ্ধার দগ্ধ দেহ, আত্মহত্যা নাকি খুন?

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: August 2, 2022 4:56 pm|    Updated: August 2, 2022 8:15 pm

A woman and her baby burn to death in Mahestala | Sangbad Pratidin

সুরজিৎ দেব, ডায়মন্ড হারবার: মা ও শিশুর রহস্যমৃত্যু। মঙ্গলবার সকালে ঘর থেকে উদ্ধার দগ্ধ দেহ। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার অন্তর্গত মহেশতলা (Maheshtala) পুরসভার ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের রায়পুরের মণ্ডলপাড়ায়। পারিবারিক অশান্তির জেরে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন বধূ? নাকি নেপথ্যে অন্য রহস্য, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। এই ঘটনায় তাঁর স্বামীকে আটক করা হয়েছে। 

মৃত বধূর নাম ডালিয়া মুফতি। বছর সাতেক আগে রহমান মুফতির সঙ্গে বিয়ে হয় তাঁর। ওই দম্পতির দুটি সন্তান রয়েছে। অভিযোগ, বিয়ের বছর দুয়েক পর থেকেই প্রায়দিনই মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরে স্ত্রী ডালিয়ার উপর অত্যাচার করত রহমান। নেশার জন্য স্ত্রীর থেকে জোর করে টাকাও নিত সে। মঙ্গলবার সকালে দুই মেয়েকে নিয়ে ঘরেই ছিলেন ডালিয়া। আচমকা দম্পতির বড় মেয়ে ছুটে ঘর থেকে বেরিয়ে জানায় অগ্নিকাণ্ডের বিষয়টি।

[আরও পড়ুন: ‘অর্পিতা-পার্থর সম্পর্ক নিয়ে কখনও প্রশ্নই জাগেনি’, বললেন মডেল-অভিনেত্রীর মা]

খবর পেয়ে পরিবারের সকলে গিয়ে দেখেন, দগ্ধ অবস্থায় ঘরে পড়ে রয়েছেন ডালিয়া ও তাঁর দেড় বছরের মেয়ে। অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় দু’জনকেই এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। ইতিমধ্যেই দেহ পাঠানো হয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য।

পরিজনদের দাবি, স্ত্রী ডালিয়ার উপর অত্যাচার করতো রহমান। তার জেরেই এই পদক্ষেপ নিয়েছে ওই গৃহবধূ। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার সকালেও মায়ের কাছে ফোনে সংসারের অশান্তির কথা জানিয়েছিলেন বধূ। বাপের বাড়ি ফিরে যাওয়ার ইচ্ছে প্রকাশও করেছিলেন। তারপরই এই ঘটনা। প্রসঙ্গত, এই ঘটনায় এখনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: স্কুলে চাকরির নামে তোলাবাজি, ছেলের মৃত্যুর পর ঋণ শোধ করে ‘প্রায়শ্চিত্ত’ বাবার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে