৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

পলাশ পাত্র, তেহট্ট: বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে যুবককে খুনের অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার তেহট্টে। ইতিমধ্যেই যুবকের পরিবারের তরফে শ্বশুরবাড়ির ৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তবে ঘটনার পর থেকেই বেপাত্তা অভিযুক্তরা।

নদিয়ার তেহ্ট্ট চাঁদেরঘাট পূর্বপাড়া এলাকার বাসিন্দা তাপস সরকার। কলকাতার একটি নামী কলেজে হোটেল ম্যানেজমেন্ট পড়তেন তিনি। পাশের পাড়া ধোপট্টের বাসিন্দা পিংকি মণ্ডলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল তাঁর। কিন্তু প্রথম থেকেই ওই যুগলের সম্পর্ক মেনে নিতে চায়নি তরুণীর পরিবারের সদস্যরা। এরপর মাসখানেক আগে বাড়ি ছাড়ে ওই যুগল। এরপরই তরুণীর পরিবারের তরফে যুবকের বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ দায়ের করে। এই পরিস্থিতিতে বিয়ে করে নেয় ওই যুগল।

[আরও পড়ুন:পুলিশ হেফাজতে নির্লিপ্ত জিয়াগঞ্জ হত্যাকাণ্ডের মূলচক্রী উৎপল, জেরায় চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস]

বিয়ের পর ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয় পরিস্থিতি। দুই পরিবারই তাঁদের সম্পর্ক মেনে নেয়। এরপর শ্বশুরবাড়িতেই থাকতে শুরু করে পিংকি। এরপর স্বাভাবিক ছন্দেই চলছিল সবকিছু। মঙ্গলবার রাতে বাইকে করে এলাকায় একটি মেলায় যায় পিংকি ও তাপস। সেখান থেকে বাড়ি ফেরে তাঁরা। জানা গিয়েছে, এরপর রাত ১০টা নাগাদ পিংকির খুড়তুতো ভাই-সহ ৪ জন তাপসকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর সারারাত আর বাড়ি ফেরেনি ওই যুবক। পরিবারের তরফে খোঁজাখুঁজিও করা হয় ওই যুবককে। এরপর বুধবার বাড়ির পাঁচশো মিটার দূর থেকে উদ্ধার হয় তাপসের দেহ।

দেহ উদ্ধারের পরই যুবকের পরিবারের তরফে দাবি করা হয়, পরিকল্পনামাফিক পিংকির পরিবারের সদস্যরা তাপসকে খুন করেছে। একই অভিযোগ জানিয়েছেন খোদ পিংকিও। যদিও এই ঘটনায় তাঁর বাবা-মায়ের যোগ নেই বলেই দাবি তাঁর। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই তাপসের পরিবারের তরফে যুবকের শ্বশুরবাড়ির সাতজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তবে এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

[আরও পড়ুন: অবৈধ খনিতে উদ্ধারকাজে নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত প্রশাসনের, নামল এনডিআরএফ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং