৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার আলিপুরদুয়ারের হ্যামিলটনগঞ্জে গণপিটুনিতে মৃত্যু হল একজনের। জানা গিয়েছে, বচসার জেরে এক পুরোহিত ও তাঁর ভাইকে ধারালো অস্ত্রের আঘাত করে ওই যুবক। এরপর স্থানীয়রাই ওই যুবককে আটকে বেধড়ক মারধর করে। গণপিটুনির জেরেই মৃত্যু হয় ওই যুবকের। ঘটনায় জড়িতদের সন্ধানে ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে হ্যামিলটনগঞ্জ থানার পুলিশ। 

[আরও পড়ুন: খাদ্যের খোঁজে এবার জাতীয় সড়কে দাঁতাল, গাড়িতে শুঁড় গলিয়ে ছড়াল আতঙ্ক]

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার বিকেলে রাজলাল শা নামে ওই যুবক হ্যামিলটনগঞ্জের এক পুরোহিতের মেয়েকে বাড়ি থেকে জোর করে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু পুরোহিত ও তাঁর ভাই বাধা দেন। অভিযোগ, সেই সময়ই ধারালো অস্ত্র দিয়ে ওই পুরোহিত ও তাঁর ভাইকে আক্রমণ করে ওই যুবক। তখনই অভিযুক্তকে ধরে ফেলে আশপাশের বাসিন্দারা। বেধড়ক মারধর করা হয় তাকে। খবর পেয়ে হ্যামিলটনগঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশের তরফেই প্রথমে কালচিনি হাসপাতালে ভরতি করা হয় রাজলালকে। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। কিন্তু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মৃত্যু হয় তার। জখম অবস্থায় পুরোহিত ও তাঁর ভাই বর্তমানে আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার রাতেও ছেলেধরা সন্দেহে এক ভারসাম্যহীন যুবককে বেধড়ক মারধর করা হয় আলিপুরদুয়ারের রাজগঞ্জের দেবেন্দ্রনগর এলাকায়। খবর পেয়ে যুবককে উদ্ধার করতে ঘটনাস্থলে যায় রাজগঞ্জ থানার পুলিশ। সেখানে পুলিশকে লক্ষ্য করে উত্তেজিত জনতা ইটবৃষ্টি করে বলে অভিযোগ। এরপর বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে কোনওক্রমে মানসিক ভারসাম্যহীন ওই যুবককে উদ্ধার করে। কিছুদিন আগেই বিধানসভায় পাশ হয়ে গিয়েছে গণপিটুনি প্রতিরোধ বিল৷ কিন্তু তাতে যে আদতে কোনও পরিবর্তনই ঘটেনি, একের পর এক ঘটনা তারই প্রমাণ। 

[আরও পড়ুন: পূর্ব বর্ধমানে মনুয়াকাণ্ডের ছায়া, প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে স্বামীকে খুনের অভিযোগে ধৃত স্ত্রী]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং