Advertisement
Advertisement

Breaking News

Nadia

শ্যালিকার বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে আপত্তি, প্রেমিককে কুপিয়ে ‘খুন’ জামাইবাবুর!

দেহ উদ্ধার করে, জওহরলাল নেহরু হাসপাতালে পাঠালে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

A youth from dumdum was death in Kalyani, Nadia

প্রতীকী চিত্র

Published by: Subhankar Patra
  • Posted:April 19, 2024 3:35 pm
  • Updated:April 19, 2024 3:35 pm

সুবীর দাস, কল্যাণী: কল্যাণীতে শ্যালিকার প্রেমিককে কুপিয়ে খুনের অভিযোগ উঠল জামাইবাবুর বিরুদ্ধে। সুব্রত শীল নামে অভিযুক্ত জামাইবাবু পলাতক।  

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কল্যাণী বিধানপল্লির বাসিন্দা শঙ্করী দাসের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল দমদমের বাসিন্দা উত্তম দাসের।  শঙ্করী বিবাহিত। কিন্তু স্বামীর সঙ্গে না থেকে কল্যাণীর বিধানপল্লিতে বাপের বাড়িতেই থাকতেন তিনি। এর মধ্যেই তাঁর পরিচয় হয় দমদমের (Dum Dum) মোতিঝিল বাপুজি কলোনির বাসিন্দা উত্তমের সঙ্গে। শঙ্করীর বাড়িতে যাতায়াতও ছিল উত্তমের। কিন্তু শ্যালিকার সঙ্গে ওই যুবকের সম্পর্ক মেনে নিতে রাজি ছিলেন না তাঁর জামাইবাবু সুব্রত শীল। 

Advertisement

[আরও পড়ুন: আইপিএলের মাঝে শহরে ফের বেটিং চক্রের হদিশ, গ্রেপ্তার ৩]

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উত্তম শঙ্করীর বাড়ি গেলে সেখানে পৌঁছন সুব্রতও। বচসা বাঁধে উত্তম, সুব্রতর । অভিযোগ, উত্তমকে বাড়ির পিছনে নিয়ে গিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপ মারতে থাকেন সুব্রত।  রক্তাক্ত উত্তমকে ফেলে সেখান থেকে পালিয়ে যান সুব্রত। 

Advertisement

[আরও পড়ুন: প্রথম দফা ভোটের LIVE UPDATE: নটা পর্যন্ত বাংলায় ভোটদানের হার ১৫ শতাংশ, দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ]

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। উত্তমের দেহ হাসপাতালে পাঠিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শঙ্করীকে আটক করে তারা। হাসপাতালে উত্তমকে মৃত ঘোষণা করা হয়। পুলিশি জেরায় তরুণী স্বীকার করেন, তাঁর জামাইবাবু প্রেমিককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন করেছেন। অভিযুক্ত সুব্রতর স্ত্রী, মেয়েও ঘটনার কথা স্বীকার করেছেন। তাঁদেরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। সুব্রতর খোঁজে তল্লাশি চলছে। 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ