BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সমাজের চোখরাঙানি উপেক্ষা করে ধর্ষিতাকে বিয়ে, নজির গড়লেন কুলতলির যুবক

Published by: Sayani Sen |    Posted: November 6, 2020 4:51 pm|    Updated: November 6, 2020 5:05 pm

An Images

দেবব্রত মণ্ডল, বারুইপুর: রানি মুখোপাধ্যায়ের (Rani Mukherjee) বিখ্যাত ছবি ‘রাজা কি আয়েগি বরাত’ দেখেছিলেন? আদালতের নির্দেশে ধর্ষিতাকে নিজের স্ত্রী হিসাবে মেনে নেওয়াই ছিল ছবির বিষয়বস্তু। এক্ষেত্রে যদিও ধর্ষক ছিল স্বামী স্বয়ং। তা সত্ত্বেও বিয়ের পরই খুব ভালভাবে স্ত্রীকে মেনে নিয়েছিলেন নায়ক তা নয়। কুলতলিতেও প্রায় একই ঘটনা ঘটল। এক্ষেত্রেও যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়া তরুণীকেই বিয়ে করলেন যুবক। তবে ধর্ষক ওই যুবক নন। পরিবর্তে নিজের দাদুর বিরুদ্ধেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তরুণী।

জীবনের পথ বিশেষ সহজ সরল নয়। সেখানে চড়াই উতরাই থাকবেই। তবে কুলতলির (Kultali) ওই তরুণীর জীবন যেন বারবার বড়সড় ঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে গিয়েছে। জন্মের ঠিক পরই বাবা ভিনরাজ্যে চলে যান। সেখানে গিয়েই সংসার পাতেন। মা-ই কষ্ট করে মেয়েকে বড় করে তুলছিলেন। কিন্তু মা-মেয়ের সংসারেও বিপদ এল। একদিন আচমকাই প্রাণ হারালেন মা। সম্পূর্ণ একা হয়ে গেলেন মেয়ে। দাদুর বাড়িতে থাকতে শুরু করলেন। সেখানে পড়াশোনাও চলছিল তাঁর। কিন্তু ২০১৩ সালে নভেম্বরে দাদুর সম্পর্কে ধারণা বদলে গেল। অভিযোগ, বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে পরপর পাঁচদিন যৌন নির্যাতন (Rape) করে দাদু। আতঙ্কে কাঁটা হয়ে যায় সেই সময় সর্বহারা নাবালিকা।

[আরও পড়ুন: অনুপ্রেরণা অ্যাঞ্জেলিনা জোলি, ক্যানসার এড়াতে স্তন বাদ দিলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের মৌসুমী]

সাহস সঞ্চয় করে সেই সময় অষ্টম শ্রেণিতে পড়া কুলতলির পশ্চিম গোপালগঞ্জের বাসিন্দা ওই যুবককে গোটা ঘটনাটি জানায় নাবালিকা। একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সহযোগিতায় হোমে গিয়ে ওঠেন নির্যাতিতা। তবে তা সত্ত্বেও যুবকের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হয়নি। মাঝে বছরের পর বছর কেটে যায়। ১৮ বছরের যুবতী তখন হোম পরিবর্তনও করে ফেলেন। নতুন হোমে যাওয়ার পর ওই যুবকের কাছে বিয়ের ইচ্ছাপ্রকাশ করেন। রাজি হয়ে যান যুবক। এরপর হোমের সকলকে সেকথা জানান যুবতী। সকলের তৎপরতায় সম্প্রতি গাঁটছড়া বাঁধেন দু’জনে। আপাতত প্রেমের জোয়ারে গা ভাসিয়ে দিব্যি সুখেই দিন কাটছে তাঁদের।

সময় বদলে গিয়েছে। অনেক এগিয়ে গিয়েছি আমরা। তা সত্ত্বেও অনেক বাঁকা কথা শুনতে হয় ধর্ষিতাকে। অনেকেই তাঁদের স্বাভাবিক জীবনে ফেরার পথে কার্যত বাধা হয়ে দাঁড়ান। অমানবিক সেইসব মানুষের মাঝে নিজেকে একেবারে অন্যরকম প্রমাণিত করে চর্চার কেন্দ্রবিন্দুতে পৌঁছে গিয়েছেন কুলতলির যুবক। তাঁকে ধন্য ধন্য করছেন প্রায় সকলেই।

[আরও পড়ুন: অমিত শাহের মাল্যদানের ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই বিরসা মুন্ডার প্রতিকৃতির শুদ্ধিকরণ তৃণমূলের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement