৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

এবিভিপির পতাকা লাগানো নিয়ে চাপানউতোর, বিশৃঙ্খলা তেহট্ট গভর্নমেন্ট কলেজে

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 31, 2019 9:30 pm|    Updated: May 31, 2019 11:05 pm

An Images

পলাশ পাত্র, তেহট্ট: দলীয় পতাকা লাগানো নিয়ে উত্তেজনা ছড়াল তেহট্ট গভর্নমেন্ট কলেজে।অভিযোগ, এই কলেজে কোনও রাজনৈতিক দলের ছাত্র সংসদ নেই। অথচ এবিভিপি শুক্রবার গোটা কলেজ চত্বর তাদের দলের পতাকায় মুড়ে দিয়েছে। অধ্যক্ষের অভিযোগ, এই নিয়ে বারবার বারণ করা সত্ত্বেও তাঁর কোনও কথাই শোনা হয়নি। এই নিয়ে শুক্রবার প্রায় সারাদিনই চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি রইল কলেজ চত্বরে।

২০১৫ সালে তৈরি হয়েছিল তেহট্ট গভর্নমেন্ট কলেজ। কিন্তু এখনও কোনও ইউনিয়ন তৈরি হয়নি। অথচ শুক্রবার দুপুরে এবিভিপি কলেজে পতাকা লাগায় বলে অভিযোগ। কলেজের গেট থেকে শুরু করে ভিতরের সর্বত্র দলীয় পতাকা লাগানো হয়। ঘটনায় কলেজের প্রিন্সিপাল শিবশঙ্কর পাল জানিয়েছেন, এর আগেও অনেক দল কলেজে পতাকা লাগাতে এসেছিল। কিন্তু তিনি অনুমতি দেননি। তাঁর কথা মেনে কোনও দলই কলেজের কোথাও পতাকা লাগায়নি। কিন্তু এবিভিপি তাঁর কথা শোনেনি বলে অভিযোগ জানান প্রিন্সিপাল। তিনি আরও বলেছেন, সরকারি তরফে তাঁর কাছে ইউনিয়ন গঠনের কোনও অনুমতি নেই। তাই তিনিও অনুমতি দিতে পারেন না। আর তাছাড়া কলেজে মেরেকেটে ২০০-২৫০ জন ছাত্রছাত্রী রয়েছে। এখানে ইউনিয়ন করারও কোনও মানে নেই বলে মনে করেন তিনি।

[ আরও পড়ুন: বায়োমেট্রিক হাজিরায় আপত্তি শ্রমিকদের, বিক্ষোভ দুর্গাপুরের ইস্পাত কারখানায় ]

এদিকে এবিভিপির জেলা সভাপতি আশিস বিশ্বাস জানিয়েছেন, আজ তাঁরা প্রিন্সিপালের সঙ্গে কথা বলতে গিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি কলেজেই আসেননি। আর তাছাড়া তাঁরা যা করছেন, তা ছাত্রছাত্রীদের স্বার্থেই করছেন। তৃণমূল ছাত্র পরিষদ বহুদিন থেকে আড়াল থেকে সংগঠন চালাচ্ছে। টাকা নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের কলেজে তারা ভরতি করাচ্ছে বলেও অভিযোগ তোলেন তিনি। এও অভিযোগ, কলেজ কর্তৃপক্ষের একটি অংশ এর সঙ্গে জড়িত। সবাই একসঙ্গে আর্থিক দুর্নীতি করে চলেছে। এই ফাঁদে যাতে পড়ুয়াদের পড়তে না হয়, তার জন্যই এবিভিপি এই পদক্ষেপ নিয়েছে। আর তাছাড়া কলেজ স্থাপনের তিন বছর কেটে যাওযার পর ইউনিয়ন করা যায়। সেদিক থেকে তেহট্ট গভর্নমেন্ট কলেজ তৈরি হয়েছিল ২০১৫ সালে। তাই এখন ইউনিয়ন করায় কোনও বাধা নেই।

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের উপর ওঠা এবিভিপির এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন পরিষদের জেলা প্রেসিডেন্ট সৌরিক মুখোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, যেখানে ছাত্র সংসদ নেই, সেখানে এভাবে দলীয় পতাকা লাগানো যায় না না। রাম-বাম এক হয়ে যে কাজকরছে, রাজনৈতিকভাবে তার মোকাবিলা করার কথাও বলেছেন তিনি। অভিযোগ তুলেছেন, পাঁচিল টপকে ঢুকে রাতের অন্ধকারে পতাকা লাগাচ্ছে এবিভিপি।

[ আরও পড়ুন: মাদারিহাটে বৃদ্ধাকে পিষে মারল দাঁতাল, ক্ষতিপূরণের আশ্বাস প্রশাসনের ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement