৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ দেশের রায় LIVE রাজ্যের ফলাফল LIVE বিধানসভা নির্বাচনের রায় মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নির্বাচন ‘১৯

৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মহানগরে বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতির রোড শো ঘিরে একেবারে রণক্ষেত্র হয়ে উঠল কলেজ স্ট্রিট চত্বর৷ সন্ধের পর থেকে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে অমিত শাহর রোড শো আটকে বিক্ষোভ দেখান টিএমসিপির সদস্যরা৷ কালো পতাকা, ‘গো ব্যাক’ স্লোগান লেখা পোস্টার নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটে বসে অবস্থান দেখানোর পাশাপাশি যাত্রাপথ আটকেও দাঁড়ানো হয় বলে অভিযোগ৷ সেটাই শুরু৷ সেখান থেকেই সমস্যার সূত্রপাত৷ মিছিলে থাকা বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে টিএমসিপি সদস্যদের হাতাহাতি বেঁধে যায়৷ রোড শো আরও খানিকটা এগোতে বিধান সরণিতে বিদ্যাসাগর কলেজের সামনে থেকে  বিক্ষোভের আগুনে ঘি পড়ে দাউদাউ জ্বলে ওঠে৷

[আরও পড়ুন: কেন্দ্রীয় বাহিনীর কাজে ক্ষোভ, কমিশনের সিইও-কে চিঠি রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিবের]

বিদ্যাসাগর কলেজের সামনে টিএমসিপি এবং বিজেপি কর্মীদের সংঘর্ষ শুরু হয়৷ ব্যারিকেড ভেঙে এগোতে চায় বিক্ষুব্ধরা৷ ইট ছোঁড়াছুঁড়ি শুরু হয় দু’পক্ষের মধ্যে৷ বিদ্যাসাগর কলেজের তখন সান্ধ্যকালীন ক্লাস চলছিল৷ হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে এবিভিপি-টিএমসিপি সদস্যরা৷ দু’পক্ষের ধুন্ধুমারে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয় কলেজ ক্যাম্পাস৷ এমনকী বিদ্যাসাগর কলেজের সামনে ঐতিহ্যবাহী দুশো বছরের পুরনো ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে দেওয়া হয়েছে৷

vidyasagar statue

কলেজের গেটে আগুন জ্বলে ওঠে৷ ধস্তাধস্তিতে  আহত হন বেশ কয়েকজন৷ ইঁটবৃষ্টি মাথা ফেটে যায় দু,একজন পড়ুয়া৷ আর্মহার্স্ট স্ট্রিট থানার পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে৷ জনতা ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করা হয়৷ 

[আরও পড়ুন:‘বাংলায় এবার গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার লড়াই’, তৃণমূলকে আক্রমণ শমীকের]

ঘটনা ঘিরে চাপানউতোর শুরু হয়ে গিয়েছে তৃণমূল এবং বিজেপি শিবিরে৷ একে অন্যকে দোষারোপ করছে৷ অমিত শাহ প্রতিক্রিয়ায় গোটা ঘটনার দায় চাপিয়েছেন রাজ্য প্রশাসন এবং পুলিশ প্রশাসনের উপর৷ তাঁর অভিযোগ, পুলিশের ভূমিকা একেবারেই নিন্দনীয়৷ মিছিল ভুল পথে চালিত করেছে পুলিশ৷ ওই এলাকা যে এতটা উত্তেজনাপ্রবণ হয়ে উঠেছিল, তা বুঝতে পুলিশ ব্যর্থ হয়েছে৷ তাই তাঁদের সমর্থকদের এমন এক নিদারুণ পরিস্থিতির মুখে পড়তে হল৷ এদিকে, রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় গোটা বিষয়টি এড়িয়ে গিয়েছেন৷ তাঁর বক্তব্য, তিনি ওই ঝামেলার আগেই মিছিল থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলেন, তাই তিনি অশান্তির বিষয়টি সম্পর্কে জানেন না৷

কলেজ স্ট্রিট চত্বরে বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতির রোড শো ঘিরে যখন এমন ধুন্ধুমার, সেসময় মুখ্যমন্ত্রী বেহালায় জনসভায় ব্যস্ত৷ ঘটনার খবর পৌঁছেছে তাঁর কানেও৷ তিনি এই অশান্তি, বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে অভিযোগ তুলেছেন, অমিত শাহ রোড শোয়ের জন্য উত্তরপ্রদেশ, ঝাড়খণ্ড থেকে লোক নিয়ে এসেছেন৷ আর তাঁরাই এমন অপ্রীতিকর পরিস্থিতির তৈরি করেছে৷ পরে এবিষয়ে তিনি স্থানীয় প্রশাসনের কাছে খোঁজখবরও নেন৷ 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং