১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফুরফুরে মেজাজ, আদিবাসী মহিলাদের সঙ্গে নাচের তালে পা মেলালেন অনুব্রত

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 21, 2018 4:08 pm|    Updated: January 21, 2018 4:08 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: আদিবাসী মহিলাদের সঙ্গে নাচের তালে পা মেলালেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। রবিবার সাঁইথিয়া কলেজ মাঠে তৃণমূলের পক্ষ থেকে আদিবাসী সম্মেলন ডাকা হয়। সেই সভাতেই অনুব্রতকে এই নয়া ভূমিকায় দেখা যায়। বোলপুরে ব্রাহ্মণ সম্মেলন, রামপুরহাটে সংখ্যালঘু সম্মেলনের পর সাঁইথিয়াতে আদিবাসী সম্মেলনের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। সেই সম্মেলন থেকে আদিবাসীদের কাঁচা বাড়িকে পাকা করার প্রতিশ্রুতি দিলেন তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। কিন্তু সম্মেলনে অনুব্রতর কয়েক মিনিটের বক্তব্য আর পা দোলানো ছাড়া আর কিছুই চোখে পড়ার মতো ছিল না।

[অভিনব উদ্যোগ, প্রবীণদের হাতেখড়ি দিয়েই আরাধনা বাগদেবীর]

সিপিএমের জেলা সম্পাদক তথা আদিবাসী নেতা মনসা হাঁসদা বলেন, “তৃণমূল সম্মেলন জমানোর জন্য শিল্পী ভাড়া করে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে মাঠ ভরাট করেছে। আদিবাসী যে ভিড় হয়েছিল তার বেশির ভাগটাই আমাদের সমর্থক। নানা বাধ্যবাধকতার জন্য তাদের তৃণমূলের সভায় যেতে হয়েছিল।” রথীন কিস্কু নামে এক আদিবাসী বাউল শিল্পীকে নিয়ে বিতর্ক উঠেছে। কারণ, গত বছর রথীনবাবু সিউড়িতে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের জনসভাতেও একইভাবে বামফ্রন্টের গুণগান গেয়েছিলেন। এদিনও তিনি তৃণমূলকে জয়ী করতে গান ধরলেন। এবং আশ্চর্যের হলেও সেই গানের সঙ্গে কোমর দোলালেন স্বয়ং অনুব্রত। এছাড়া আদিবাসী মেয়েরা মঞ্চে উঠলে তাঁদের সঙ্গেও পা মেলালেন ‘কেষ্টদা’। মনসা হাঁসদা জানান, রথীন তাঁদের সমর্থক। বিনা পারিশ্রমিকে মানিক সরকারের সভায় তিনি মানুষের গান গেয়েছিলেন। যদিও রথীনের দাবি, “আমি শিল্পী। আমি টাকা নিয়েই গান গাই। বামফ্রন্টের সভায় আমি সামাজিকভাবে আমাদের উন্নয়নের কথা বলেছিলাম। রবিবার তৃণমূলের সমর্থনেই কথা বলেছি। কারণ, গত একবছর ধরে রাজ্য সরকার আদিবাসী উন্নয়নে যথেষ্ট উদ্যোগী হয়েছে।”

[‘আগুনে হাত দেবেন না’, সুকনার জনসভা থেকে চামলিংকে হুঁশিয়ারি বিনয়ের]

রবিবারের আদিবাসী সম্মেলনকে ঘিরে রাজ্য সরকারের পক্ষে বার্তা দিতে লালগড় ও পশ্চিম মেদিনীপুর থেকে দুই আদিবাসী বিধায়ককে এদিন সাঁইথিয়ায় হাজির করানো হয়। তাঁরা আদিবাসী ভাষায় রাজ্য সরকারের নানা উন্নয়নের কথা বলেন। পরে মূল বক্তা অনুব্রত মণ্ডল বলেন, “রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে উন্নয়ন করেছেন, গত ৩৪ বছরে বামফ্রন্ট তার ধারেকাছেও করেনি।” এরপরেই জেলা জুড়ে সব আদিবাসীদের পাকা বাড়ি করার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

[ছবি: সুশান্ত পাল ]

[সেবাই মূল মন্ত্র, রাষ্ট্রপতির আমন্ত্রণে দিল্লি যাচ্ছেন না ‘অ্যাম্বুল্যান্স দাদা’ করিমুল]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement