২৮ আশ্বিন  ১৪২৬  বুধবার ১৬ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

আকাশনীল ভট্টাচার্য, বারাকপুর: পরিস্থিতি একই আছে৷ শুধু পালটেছে ফুলের রং, বদলেছে লড়াইয়ের অভিমুখ৷ বারাকপুর কেন্দ্রে স্রেফ এই দুই বদলেই তৃণমূল সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদীর হ্যাটট্রিক আটকে দিলেন ভাটপাড়ার ভূমিপুত্র অর্জুন সিং৷ ১৬ হাজারেরও বেশি ভোটে অর্জুনের লক্ষ্যভেদ হয়েছে, দীনেশের সহায় হননি ঈশ্বর৷   

[আরও পড়ুন: হারের দায় জেলা সভাপতির দিকে ঠেলে দিলেন বালুরঘাটের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা]

বারাকপুর কেন্দ্রের লড়াইয়ের দিকে এবার নজর ছিল গোটা রাজ্যবাসীর৷ লড়াই আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছিল বিভিন্ন দিক থেকে৷ বারাকপুরের লড়াইয়ের জন্য তৃণমূলের টিকিট চেয়েছিলেন অর্জুন সিং৷ সেই আবদার খারিজ হওয়ায় আর নিজেকে সামলাতে পারেননি অর্জুন৷ দল ছেড়ে সোজা গিয়ে ভিড়েছিলেন গেরুয়া শিবিরে৷ শিবির বদলের পুরস্কারও পেয়েছেন৷ অর্জুনের পছন্দমতো জায়গাতেই তাঁকে প্রার্থী করা হয়েছে৷ আর সেই সুযোগের পূর্ণ সদ্ব্যবহারে কোনও ফাঁক রাখেননি ভাটপাড়ার জনপ্রিয় নেতা৷ বাহুবলই হোক বা অর্থবল কিংবা জনপ্রিয়তার জোর – নিজের এলাকার জনসমর্থন নিজের দিকে টেনে রাখতে সক্ষম হয়েছেন অর্জুন সিং৷ উলটোদিকে, উন্নয়নের কাজ, ভাল ইমেজ সত্ত্বেও দীনেশ ত্রিবেদী নিজের গড় ধরে রাখতে পারলেন না৷

ভোটের দিন অর্থাৎ ১২ মে কি না করেছেন অর্জুন সিং? বুথ লুঠের অভিযোগ তুলে সকাল থেকে ছুটে বেরিয়েছেন এদিক-সেদিক৷ ভাটপাড়া, নৈহাটি, বারাকপুরের বেশ কয়েকটি এলাকায় ঢুকে বিক্ষোভের মুখেও পড়েছেন৷ প্রতিরোধ করতে গিয়ে হোঁচট খেয়ে পড়েছেন৷ তবু দমে যাননি৷ সঙ্গীসাথীদের নিয়ে ভোটের দিনও প্রবলভাবে সক্রিয় ছিলেন অর্জুন সিং৷

[আরও পড়ুন: মতুয়াগড় হাতছাড়া মমতার, আত্মীয়াকে হারিয়ে বনগাঁয় জয়ী শান্তনু ঠাকুর]

পঞ্চম দফায় বারাকপুরের ভোটপর্ব মিটতে না মিটতেই ভাটপাড়া উপনির্বাচনের তোড়জোড় এবং তা ঘিরে ফের উত্তপ্ত পরিস্থিতি৷ বিধানসভা উপনির্বাচনে নিজের ছেড়ে আসা আসনটিতে দাঁড় করিয়েছেন ছেলেকে৷ পবন সিংয়ের হয়েও কম খাটাখাটনি করেননি অর্জুন৷ বিতর্কেও জড়িয়েছেন৷ অশান্ত পরিবেশও তৈরি হয়েছে৷ এসবের পর অনেকেরই মনে হয়েছিল, অর্জুন বুঝি ব্যাকফুটে৷ কিন্তু বৃহস্পতিবার সেসব মনে হওয়া হাওয়ায় মিলিয়ে গেল৷ হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর বারাকপুর কেন্দ্রে শেষ হাসি হাসলেন অর্জুনই৷ সংসদে যাওয়ার লক্ষ্যপূরণ হল তাঁর৷ আরেকদিকে, ভাটপাড়া বিধানসভা থেকে মদন মিত্রের মতো হেভিওয়েট প্রার্থীকে হারিয়ে জয়ী হয়ে বাবাকে যোগ্য সঙ্গ দিলেন ছেলে পবনও৷ এক দশক ধরে তৃণমূলের দখলে থাকা বারাকপুর কেন্দ্র এবার গৈরিক যুগ শুরু হল৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং