Advertisement
Advertisement

Breaking News

Asansol Stamped case

শহরে নেই আসানসোল দুর্ঘটনায় অভিযুক্ত জিতেন্দ্রপত্নী, জেরা করতে গিয়ে খালি হাতে ফিরল পুলিশ

এক বিজেপি কাউন্সিলরকে আটক করেছে পুলিশ।

Asansol Stamped case accused Chaitali Tiwari is out of town | Sangbad Pratidin
Published by: Paramita Paul
  • Posted:December 20, 2022 8:50 pm
  • Updated:December 20, 2022 8:50 pm

শেখর চন্দ্র, আসানসোল: নোটিস দিয়েছিল আগেই। কথামতো মঙ্গলবার সকালেই চৈতালি তেওয়ারিকে জেরা করতে জিতেন্দ্রর (Jitendra Tiwari) বাড়িতে পৌঁছে গিয়েছিল পুলিশ। কিন্তু জেরা করা হল না। বাড়িতেই ছিলেন না তেওয়ারি দম্পতি। ফলে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার খালি হাতেই ফিরে আসতে হয় দুর্গাপুর-আসানসোল পুলিশের কর্তাদের।

উল্লেখ্য, আসানসোলে পদপিষ্ট হয়ে তিনজনের মৃত্য়ুর ঘটনায় বিজেপি কাউন্সিলর চৈতালিকে জেরা করতে চেয়ে নোটিস দিয়েছিল পুলিশ। লেখা হয়েছিল “উইদাউট ফেল ” চৈতালি তেওয়ারি যেন নিজের আবাসনে মঙ্গলবার সকাল দশটা নাগাদ সব তথ্য সহ উপস্থিত থাকেন। কিন্তু উপস্থিত ছিলেন না। এরপর পুলিশ কী পদক্ষেপ করে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। এদিকে এফআইআরে নাম থাকা আরেক বিজেপি কাউন্সিলর অমিত তুলসিয়ানকে এদিন কাঁকসা থেকে আটক করেছে পুলিশ।

Advertisement

[আরও পড়ুন: কলকাতাবাসীর জন্য সুখবর, বড়দিনে বেশি রাত অবধি চলবে মেট্রো, দেখে নিন সময়সূচি]

সোমবার দুপুরেই আসানসোলের জিটি রোডের গোধূলি মোড় সংলগ্ন ঘনশ্যাম অ্যাপার্টমেন্টে জিতেন্দ্র জায়াকে নোটিস দিয়েছিল আসানসোল উত্তর থানার পুলিশ। সেইমতো মঙ্গলবার সকাল দশটায় তাঁদের আবাসনে হাজির হয় পুলিশের একটি দল। কিন্তু আবাসনে ছিলেন না তেওয়ারি দম্পতি। ফলে সিঁড়িতে দাঁড়িয়ে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করে ফিরে যান পুলিশ আধিকারিকরা। উল্লেখ্য, রবিবারই স্ত্রীকে নিয়ে চিকিৎসার জন্য কলকাতায় রওনা দিয়েছিলেন জিতেন্দ্র। নোটিসের বিষয় জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, “আমার এই ব্যাপারে কিছু জানা নেই। পুলিশ আমায় কিছু জানায়নি।” এদিকে স্ত্রীকে জেরা করতে আবাসনে আসার এক ঘণ্টার মধ্যে টুইট করেন আসানসোল পুরনিগমের প্রাক্তন মেয়র বিজেপি নেতা জিতেন্দ্র তেওয়ারি। লেখেন, “ছেড়ে যাব না এই বাংলাকে, জন্ম হয়েছে এই বাংলার মাটিতে মৃত্যু বরণ করব বাংলা মায়ের কোলে, আসানসোলের তৃণমুল নেতারা যা পারবে করো।”

Advertisement

উল্লেখ্য, গত বুধবার আসানসোল পুরনিগমের ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের রেলপারের রামকৃষ্ণ ডাঙালে শিবচর্চা ও মেগা কম্বল বিতরণের অনুষ্ঠান ছিল। বকলমে এই অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তা ছিলেন আসানসোল পুরনিগমের বিরোধী দলনেত্রী চৈতালি তেওয়ারি। এই ঘটনায় পদপিষ্ট হয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়। মৃত ঝালি বাউরির ছেলে সুখেন বাউরি পরের দিন আসানসোল উত্তর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অনিচ্ছাকৃত খুন-সহ তিনটি ধারায় এফআইআর হয়। তাতে জিতেন্দ্র তেওয়ারি, চৈতালি তেওয়ারি-সহ নির্দিষ্ট করে ১০ জনের নাম ছিল। তাঁদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: হাঁসখালি গণধর্ষণ ও খুন: দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর ৫ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্য পেল মৃতার পরিবার]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ