২৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মনুয়াকাণ্ডের রায়দান স্থগিত করল আদালত। সূত্রের খবর, আগামী ২৫ জুলাই মামলার রায়দান করবে বারাসত ফাস্ট ট্র্যাক ফোর্থ কোর্ট। প্রসঙ্গত, বছর দু’য়েক আগে প্রেমিকের সঙ্গে পরিকল্পনা করে স্বামীকে খুন করার অভিযোগ উঠেছিল বারাসতের মনুয়ার মজুমদারের বিরুদ্ধে। সূত্রের খবর, দীর্ঘদিন মামলা চলার পর সোমবার ওই মামলার রায় ঘোষণার কথা ছিল। তবে অনিবার্য কারণে এদিন রায়দানের প্রক্রিয়া স্থগিত করে বারাসত আদালতে। 

                              [আরও পড়ুন: ফের রাতভর দুষ্কৃতী তাণ্ডব কাঁকিনাড়ায়, বোমাবাজিতে জখম শিশু]

২০১৭ সালের ২ মে ভয়ংকর হত্যাকাণ্ডের সাক্ষী থেকেছিল রাজ্য। স্ত্রীর প্রেমিকের হাতে নৃশংসভাবে খুন হয়েছিলেন ব্যবসায়ী অনুপম সিংহ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছিল, খুনের উদ্দেশে ওই দিন অনুপমের বাড়িতেই লুকিয়ে ছিল তাঁর স্ত্রীর প্রেমিক অজিত। অনুপম বাড়ি ফিরতেই পিছন থেকে তাঁকে আঘাত করে মনুয়ার প্রেমিক। খুনের পর অনুপমের দেহ থেকে খুলে রাখা হয় আংটি। এরপর ঘরে ঢুকতে গিয়ে মৃতের এক ভাই প্রথম অনুপমের দেহ পড়ে থাকতে দেখেন।

বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই মৃতের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে পুলিশ। অনুপমের স্ত্রী মনুয়ার কথায় অসংগতি মেলায় তাকে চেপে ধরেন তদন্তকারীরা। এরপরই অজিতের সন্ধান পায় পুলিশ। মনুয়া ও অজিতকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করে পুলিশ। চাপের মুখে ভেঙে পড়ে অজিত। স্বীকার করে গোটা ঘটনার কথা। কেঁদে ফেলে জানায়, বড় ভুল হয়ে গেছে। কিন্তু তখনও নিজের জায়গায় অনড় ছিলেন মনুয়া। কিন্তু খুনের সাগরেদ সব স্বীকার করে নেওয়ায় নিস্তার মেলেনি মনুয়ার। গ্রেপ্তার করা হয় দুই অভিযুক্তকে। শুরু হয় মামলা।

পুলিস সূত্রে জানা যায়, স্বামী এবং প্রেমিক, দু’জনেই মনুয়ার প্রেমে অন্ধ ছিল। সেই সুযোগটাই কাজে লাগিয়েছিল মনুয়া মজুমদার। জেরার মুখে ভেঙে পড়ে অজিত জানিয়েছিল, মনুয়াকে সে ভালবেসে ফেলেছিল। দিনের পর দিন মনুয়া ফোন করে অনুপমের নামে নানা নালিশ করত সে। বলত, অনুপম তাকে শারীরিক সম্পর্কের নামে অত্যাচার করে। আর এসব শুনেই অনুপমের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফুঁসতে থাকে অজিত। এরপরই প্রেমিকের সঙ্গে স্বামীকে খুনের ছক কষে মনুয়া।

[আরও পড়ুন: সীমান্ত থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে হেনস্তা, বাংলাদেশ পুলিশের হাতে নিগৃহীত ভারতীয় যুবক]

দীর্ঘদিন ধরেই সেই মামলার শুনানি চলছিল বারাসত আদালতে। সূত্রেরর খবর, সোমবারই বারাসত ফাস্ট ট্র্যাক ফোর্থ কোর্টের বিচারক বৈষ্ণব সরকারের ওই মামলার রায়দানের কথা ছিল। তবে সোমবার সকালে আদালতের তরফে জানানো হয় ২৫ জুলাই মামলার রায় ঘোষণা করা হবে। প্রায় ২ বছর মামলা চলার পর ছেলের খুনে অভিযুক্তদের সাজা শোনার আশায় আদালতে গিয়েছিলেন মৃতের পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু কার্যত খালি হাতেই ফিরতে হল তাঁদের। এখন ২৫ জুলাইয়ের অপেক্ষায় অনুপমে পরিবারের সদস্যরা। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং