BREAKING NEWS

১৩ মাঘ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

টাকা নিয়েও কাজে ফাঁকি! ঠিকাদারকে ধমক মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের

Published by: Tanumoy Ghosal |    Posted: March 7, 2019 5:09 pm|    Updated: March 7, 2019 5:10 pm

Bengal minister lashed contractor

বিক্রম রায়, কোচবিহার: বেশিরভাগ টাকাই মিটিয়ে দিয়েছে সরকার। কিন্তু, কাজ কার্যত কিছুই হয়নি! পরিদর্শনে গিয়ে ঠিকাদারকে ধমকালেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। মন্ত্রীর হুঁশিয়ারি, ১৫ দিনের মধ্যে যদি কাজ শেষ না হয়, তাহলে ওই ঠিকাদার সংস্থাকে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে।

[ স্ট্যান্ডে সাইকেল রেখে বাইক নিয়ে চম্পট! বর্ধমানে গ্রেপ্তার সরকারি কর্মী]

ঘটনা ঠিক কী? সংস্কারের অভাবে দীর্ঘদিন ধরেই বেহাল কোচবিহারের এমজেএম স্টেডিয়াম। অসমান মাঠে আর কেউই খেলাধুলো করতে আসে না। জানা গিয়েছে, সম্প্রতি স্টেডিয়াম সংস্কারের জন্য অর্থ বরাদ্দ করে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর। সিদ্ধান্ত হয়, মাটি কেটে এমজেএম স্টেডিয়ামের মাঠটি সংস্কার করা হবে। নিয়মমাফিক টেন্ডার ডেকে একটি ঠিকাদার সংস্থাকে কাজের বরাত দেন কোচবিহার ১ নম্বর ব্লকের বিডিও। বৃহস্পতিবার সকালে মাটির কাটার কাজ খতিয়ে দেখতে কোচবিহারে এমজেএম স্টেডিয়ামে যান উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। কিন্তু ঠিকাদার সংস্থা কাজে এতটাই অসন্তুষ্ট হন যে, আর মেজাজ ঠিক রাখতে পারেননি মন্ত্রী। সকলের সামনেই ঠিকাদারকে রীতিমতো ধমকান তিনি। কোচবিহারের এমজেএম স্টেডিয়ামে মাটির কাটার কাজ শেষ করার জন্য ঠিকাদারকে ১৫ দিন সময় দিয়েছেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী। মন্ত্রী হুঁশিয়ারি, ১৫ দিনের মধ্যে কাজ শেষ না হলে ওই ঠিকাদার যাতে জীবনে আর কোনও কাজ না পান, সে ব্যবস্থা করবেন তিনি।

কিন্তু উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের অসন্তোষের কারণটা কী? তাঁর অভিযোগ, স্টেডিয়ামে মাটি কাজের জন্য বিল জমা দিয়ে বেশিরভাগ টাকাই আদায় করে নিয়েছেন ঠিকাদার সংস্থার মালিক। অথচ মাটি কাটার কাজ ২৫ শতাংশও সম্পূর্ণ হয়নি। এর আগে পঞ্চায়েত ভোটের সময়ে গণনাকেন্দ্রের বাইরে শাসকদলের কর্মীদের উল্লাসে বাধা দেওয়ার কর্তব্যরত পুলিশকর্মীদের ধমকে ছিলেন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ।  

দেখুন ভিডিও:

ছবি ও ভিডিও: দেবাশিস বিশ্বাস

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে