৫ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

‘ভোটে না লড়েও কেউ হতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী’, জল্পনা উসকে তাৎপর্যপূর্ণ ইঙ্গিত দিলীপের

Published by: Arupkanti Bera |    Posted: March 30, 2021 8:47 pm|    Updated: March 30, 2021 8:49 pm

Bengal Polls: Dilip Ghosh's Indicative remark ON Chief Ministership of West Bengal । Sangbad Pratidin

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিডটাল ডেস্ক: বিজেপি (BJP) ক্ষমতায় এলে কে হবেন মুখ্যমন্ত্রী? নবান্ন (Nabanna) দখলের কুরুক্ষেত্রে সবথেকে চর্চিত প্রশ্নগুলির অন্যতম। কিন্তু বারবার প্রশ্ন উঠলেও উত্তর মেলেনি একবারও। কিন্তু রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) মঙ্গলবার গুরুত্বপূর্ণ একটি ইঙ্গিত করেন। তিনি বলেন, “এটা জরুরি নয় যে যাঁরা ভোটে লড়ছেন, তাঁদের মধ্যে থেকেই কেউ মুখ্যমন্ত্রী হবেন। তাঁদের বাইরে থেকেও কেউ হতে পারেন।” সেই সঙ্গে দিলীপ ঘোষের দাবি, “শেষ দফা পর্যন্ত ভোটে বিজেপি হাওয়া থাকবে।” সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য পাওয়া গিয়েছে।

সম্প্রতি ভোট (West Bengal Assembly Election 2021) প্রচারে এসে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও (Amit Shah) বাংলার মুখ্যমন্ত্রীত্ব নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, “বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হবেন কোনও ভূমিপুত্রই।” অর্থাৎ বিজেপি ক্ষমতায় এলে বাংলার কেউ মসনদে বসবেন। সেই মন্তব্যের সঙ্গে দিলীপ ঘোষের এই ইঙ্গিতকে মেলাতে চাইছেন অনেকেই। অনেকেই আবার দুয়ে দুয়ে চারও করতে চাইছেন!

 

ভোট ময়দানে নামার পর সাধারণ মানুষ, এমনকী বিজেপির অন্দরেও এই প্রশ্ন বারবার ঘুরপাক খাচ্ছে, গেরুয়া শিবির জিতলে কে হবেন মুখ্যমন্ত্রী? কখনও খোদ দিলীপ ঘোষ, কখনও বিজেপির স্টার প্রচারক মিঠুন চক্রবর্তী এমনকী শুভেন্দু অধিকারী, স্বপন দাশগুপ্ত, তথাগত রায়-সহ অনেক নেতাদের নাম ভেসে বেড়িয়েছে জনমানসেও। বাদ যায়নি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নামও। তবে যথারীতি বিজেপির তরফে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

[আরও পডু়ন: রাজধানী এক্সপ্রেস নাশকতা মামলায় ৭ দিনের NIA হেফাজতে ছত্রধর মাহাতো]

তবে বিভিন্ন রাজ্যে বিজেপির বিধানসভা ভোটের সাম্প্রতিক ইতিহাস দেখলেই বোঝা যায়, দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য নতুন কোনও তত্বের অবতারণ নয়। কারণ ২০১৭ সালে উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার পর কোনও বিধায়ককে মুখ্যমন্ত্রী করা হয়নি। বরং বিজেপির হিন্দুত্বের পোস্টার বয় যোগী আদিত্যনাথকে গোরক্ষপুর থেকে লখনউয়ে উড়িয়ে নিয়ে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী করা হয়। গোরক্ষপুর মঠের মহন্ত তথা বিজেপি সাংসদকে উত্তরপ্রদেশের ২২তম মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয় দল। ভোটের আগে যার কোনও ইঙ্গিতই ছিল না। একই ঘটনার দেখা যায় ত্রিপুরায় বিপ্লব দেবের ক্ষেত্রেও। কারণ সেখানে বিপ্লবকে মুখ্যমন্ত্রী করাও একটা চমক ছিল বিজেপি নেতা কর্মীদের কাছেও।

 

যদিও খুব কম ক্ষেত্রেই মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী তুলে ধরে ভোটে নামে বিজেপি। বাংলার ক্ষেত্রে লড়াইটা আবার অন্য রকম। কারণ দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে গত লোকসভা ভোটে ৪২-এ ১৮টি আসন দখল করে বিজেপি। আর লোকসভা ভোটের পর থেকেই নবান্ন দখলের স্বপ্ন আরও জোরদার হয়েছে বিজেপির কাছে। তখনই মনে করা হচ্ছিল রাজ্য বিজেপি সভাপতিকেই মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী করে ভোটে নামবে গেরুয়া শিবির। তাই মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন এটা বড় প্রশ্ন। সেই প্রশ্নের উত্তরে দিলীপ ঘোষ যা বললেন তাতে অনেকগুলি সম্ভাবনার ইঙ্গিত রয়েছে ঠিকই। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে ধরে নেওয়া যেতেই পারে তিনিও মুখ্যমন্ত্রীত্বের দৌড়ে রয়েছেন। তাহলে কি দুয়ে দুয়ে চার হতে যাচ্ছে? উত্তর মিলবে ২ মের পর।

[আরও পডু়ন: মঞ্চে বেজে উঠল জাতীয় সংগীত, হুইলচেয়ার ছেড়ে এক পায়েই উঠে দাঁড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে