৭ আষাঢ়  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

উপনির্বাচনে মোর্চার প্রতীক ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা, আদালতের রায়ে চাপে গুরুং-বিনয়রা

Published by: Tanujit Das |    Posted: April 24, 2019 6:01 pm|    Updated: April 24, 2019 6:01 pm

Bimal Gurung, Binay Tamang can not use Morcha symbol

শান্তনু কর, জলপাইগুড়ি: আসন্ন দার্জিলিং বিধানসভার উপনির্বাচনে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার প্রতীক ব্যবহার করতে পারবে না বিমল গুরুং ও বিনয় তামাং গোষ্ঠীর কেউই৷ বুধবার এমনই নির্দেশ দিল কলকাতা হাই কোর্টের জলপাইগুড়ি সার্কিট বেঞ্চ৷ আদালতের তরফে স্পষ্ট ভাষায় জানান হয়েছে, নির্বাচনে লড়াই করতে হলে, দুই গোষ্ঠীকেই নির্দল প্রতীকে লড়তে হবে৷ কিন্তু কোনও ভাবেই কেউ মোর্চার প্রতীক ব্যবহার করতে পারবে না৷

[আরও পড়ুন: মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলায় ভোটের দিনে প্রাণহানি, গ্রেপ্তার ৬ ]

আগামী ১৯ মে দার্জিলিং বিধানসভা কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উপনির্বাচন৷ লোকসভা নির্বাচনের পর এবারেও পাহাড়ের শক্তির উপরেই ভরসা রেখেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মোর্চাকে গুরুত্ব দিয়ে লোকসভায় যেমন তাদের দলীয় সদস্য অমর সিং রাইকে সমর্থন করেছে তৃণমূল৷ তেমনই বিধানসভার উপনির্বাচনেও মোর্চা প্রার্থী বিনয় তামাংকে সমর্থন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷ কিন্তু এক্ষেত্রে প্রধান অসুবিধা হয়ে দাঁড়িয়েছে দলীয় প্রতীক৷ একদিকে যেমন বিনয় তামাং গোষ্ঠী মোর্চার প্রতীক নিয়ে ভোট ময়দানে অবতীর্ণ হতে চাইছে৷ তেমনই, বিমল গুরুং গোষ্ঠীও একই দাবি জানিয়েছে৷ এই নিয়েই পাহাড়ের রাজনীতিতে তৈরি হয়েছে চরম কোন্দল৷ বুধবার সার্কিট বেঞ্চের নির্দেশে যার সমাধান সূত্র পাওয়া গিয়েছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷

[আরও পড়ুন: ‘দিদির সূর্য অস্ত যাবে’, বোলপুরের সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ মোদির ]

জানা গিয়েছে, আগামী ২৬ এপ্রিল প্রার্থীপদে মনোনয়ন জমা দেবেন বিনয় তামাং। মনোনয়নের পর গোর্খা টেরিটোরিয়াল অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (জিটিএ)-এর চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দেবেন তিনি। নবান্ন সূত্রে খবর, বিনয় তামাং জয়ী হলে তাঁকে পাহাড় সংক্রান্ত কোনও দপ্তরের মন্ত্রী করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী৷ অন্যদিকে, দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে হরকাবাহাদুর ছেত্রীর ‘জন আন্দোলন পার্টি’র তরফে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অমর লামা বিধানসভা আসনের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন৷ ২০০৪ সালে তিনি দার্জিলিংয়ের বিধানসভা নির্বাচনে লড়েছিলেন। পাশাপাশি বিমলপন্থী মোর্চা, জিএনএলএফ ও বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, জিএনএলএফের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অজয় এডওয়ার্ডকে প্রার্থী করার কথা ভাবা হচ্ছে। ফলে লোকসভা নির্বাচনের পর দার্জিলিং আসনে বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ফের একবার সরগরম হতে চলেছে শৈল শহরের রাজনীতি।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement