২১ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

ভদ্রেশ্বর থানা ঘেরাওয়ে বাধা, গাড়ি আটকানোয় পুলিশের সঙ্গে বচসা লকেট-সায়ন্তনের

Published by: Sayani Sen |    Posted: June 5, 2020 3:47 pm|    Updated: June 5, 2020 5:29 pm

An Images

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায় ও জ্যোতি চক্রবর্তী: ত্রাণ বিলিতে বাধা, মিথ্যা মামলায় কর্মীদের ফাঁসানো-সহ একাধিক অভিযোগে বিজেপির থানা ঘেরাও কর্মসূচিতে বাধা পুলিশের। ভদ্রেশ্বর থানা ঘেরাও করতে যাওয়ার পথে জিটি রোডের কাছেই আটকে দেওয়া হয় সায়ন্তন বসুকে (Sayantan Bose)। পুলিশের সঙ্গে বচসায় হয় তাঁর। অন্যদিকে, দলীয় কর্মীদের নিয়ে গাইঘাটা থানা ঘেরাও করেন সাংসদ শান্তনু ঠাকুর।

অকারণে বিজেপি কর্মীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে, ত্রাণ বিলিতে বাধা দেওয়া হচ্ছে-সহ একাধিক অভিযোগে থানা ঘেরাও কর্মসূচি নিয়েছে বিজেপি। শুক্রবার লকেট চট্টোপাধ্যায় এবং সায়ন্তন বসুর নেতৃত্বে হুগলির ভদ্রেশ্বর থানা ঘেরাও করার কথা ছিল। সেই অনুযায়ী নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে জিটি রোড ধরে ভদ্রেশ্বর থানার দিকে যাচ্ছিলেন। 

অভিযোগ, তেলিনিপাড়ায় যাওয়ার পথে আটকানো হয় লকেট চট্টোপাধ্যায়কে। এছাড়াও ভদ্রেশ্বর থানার ওসির উপস্থিতিতে সায়ন্তন বসুর গাড়ি আটকানো হয়। কোনওভাবেই থানার কাছে তাঁকে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া সম্ভব নয় বলেই জানানো হয়। তাতেই বেজায় চটেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। পুলিশের সঙ্গে একপ্রস্থ বচসাতেও জড়ান লকেট চট্টোপাধ্যায় এবং সায়ন্তন বসুরা। বিজেপি নেতার দাবি, বাংলায় যে গণতন্ত্র নেই সে জিটি রোডে তাঁকে আটকানো দেখেই পরিষ্কার। দীর্ঘক্ষণ অবস্থান বিক্ষোভেও শামিল হন বিজেপি নেতাকর্মীরা।

দেখুন ভিডিও:

[আরও পড়ুন: রেললাইন ধরে হাঁটার সময় বালি হল্টের কাছে ইঞ্জিনের ধাক্কা, যুবকের চোখের সামনে মৃত্যু মা ও বোনের]

এদিকে, গাইঘাটা থানার সামনেও রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ অবস্থান করে বিজেপি। ত্রাণ নিয়ে দলবাজি, বিজেপি কর্মীদের বেছে বেছে গ্রেপ্তার ও পুলিশের বিরুদ্ধে দলবাজির অভিযোগ তুলে এনে গাইঘাটা থানার সামনে বিক্ষোভ অবস্থান করেন গেরুয়া শিবিরের কর্মী সমর্থকরা। শুক্রবার দুপুরে সাংসদ শান্তনু ঠাকুর ও বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাসের নেতৃত্বে গাইঘাটা থানার গেটের সামনে যশোর রোডে বসে পড়েন কর্মীরা। বিক্ষোভ তুলতে যায় বিশাল পুলিশবাহিনী। তবে সেখানেও পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন বিজেপি নেতাকর্মীরা।

[আরও পড়ুন: জলপাইগুড়িতে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ধুন্ধুমার, গেট ভেঙে বেরনোর চেষ্টা বাসিন্দাদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement