১০ ফাল্গুন  ১৪২৬  রবিবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

টিটুন মল্লিক, বাঁকুড়া: মাদ্রাসার পরিচালন সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত বাঁকুড়ার বড়জোড়া। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এবার বিজেপির দলীয় কার্যালয় পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। পরিস্থিতি যাতে নতুন করে উত্তপ্ত না হয় সেই কারণে এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। ঘটনার তদন্তের দাবি জানিয়ে সরব হয়েছেন বিজেপির কর্মীরা।

গত লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে ক্রমেই বিজেপির সাংগঠনিক শক্তি বাড়ছে বড়জোড়ায়। সম্প্রতি নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে মিছিল ও সভা করেছেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। ওই সভা থেকেই স্থানীয় তৃণমূল নেতা সুখেন বিদ ও বড়জোড়া ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অলোক মুখোপাধ্যায়কে ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে বুঝে নেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন সাংসদ। এরপর থেকেই বড়জোড়ায় শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। দু’পক্ষের সংঘর্ষে প্রায়ই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। মাদ্রাসার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরে নতুন করে উত্তেজনার পারদ চড়তে শুরু করেছে বড়জোড়ায়। এই পরিস্থিতিতে বুধবার রাতে এলাকার একটি বিজেপি কার্যালয় দাউ দাউ করে জ্বলতে দেখেন স্থানীয়রা। রাতেই নিয়ন্ত্রণে আসে আগুন। তবে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয় ওই কার্যালয়টি।

Bankura-2

[আরও পড়ুন: ‘আপনারা ধান্দাবাজ, টাকার দরকারে ছোটেন’, দিলীপের সুরেই বিদ্বজ্জনদের আক্রমণ সৌমিত্র খাঁ’র  ]

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়েছে বাঁকুড়ার বড়জোড়ায়। বিজেপির নেতা-কর্মীদের অভিযোগ, তৃণমূল এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত। মাদ্রাসার পরিচালন সমিতির নির্বাচনকে ঘিরে যে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে, সেই ঘটনার জেরেই বিজেপির পার্টি অফিসে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেও দাবি করেন অনেকেই। যদিও বিজেপির অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেই দাবি করেছেন বড়জোড়া ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অলোক মুখোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “নিজেদের কার্যালয়ে আগুন লাগিয়ে রাজনীতি করতে চাইছে বিজেপি।” অন্যদিকে, এদিনই উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটির ঘোষপাড়া রোড এলাকায় বিজেপির কার্যালয়ে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এক্ষেত্রেও কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে শাসকদলকে। ইতিমধ্যেই পৃথক দুটি ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং