BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফলপ্রকাশ পর্যন্ত এরাজ্যে বাহিনী রাখার আরজি, হিংসার আশঙ্কায় কমিশনে বিজেপি

Published by: Tanujit Das |    Posted: May 20, 2019 2:26 pm|    Updated: May 20, 2019 2:26 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফলাফল ঘোষণা হলে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি কার্যকর্তাদের উপর হামলা চালাতে পারে শাসকদল৷ এই আশঙ্কায় ফলপ্রকাশ পর্যন্ত এরাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনী ও বিশেষ পর্যবেক্ষকদের রেখে দেওয়ার আরজি নিয়ে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হল বিজেপি৷ সোমবার দিল্লিতে কমিশনের সদর দপ্তরে হাজির হয়ে একাধিক আসনে পুনর্নির্বাচনেরও দাবি জানালেন গেরুয়া শিবিরের শীর্ষ নেতারা৷

[ আরও পড়ুন: মাথায় ভেঙে পড়ল লোহার বিম, হাওড়া স্টেশনে আহত মহিলা-সহ বেশ কয়েকজন]

সূত্রের খবর, এদিন বিজেপির নেতারা কমিশনের সামনে তুলে ধরেন এরাজ্যের নির্বাচন চলাকালীন ও নির্বাচন পরবর্তী হামলার চিত্র৷ কীভাবে বিভিন্ন এলাকায় বিজেপি-সহ অন্যান্য বিরোধীদের শাসক দলের কর্মী-সমর্থকদের হিংসার মুখে পড়তে হচ্ছে, তা জানান৷ তাঁরা অভিযোগ করেন, রাজ্যের বিপুল সংখ্যক বুথে বিরোধীদের এজেন্ট বসতে দেওয়া হয়নি৷ কর্মীদের বাড়িতে হামলা চালানো হয়েছে৷ এমনকী প্রার্থীদেরও হেনস্তা করা হয়েছে৷

বিজেপি নেতারা অভিযোগ করেন, নির্বাচনের সময় কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারত৷ তাঁদের আশঙ্কা, এক্সিট পোলগুলির ইঙ্গিত যদি সত্যি হয়, তবে পশ্চিমবঙ্গে ভাল ফল করতে চলেছে বিজেপি৷ সেক্ষেত্রে রাজনৈতিক রোষ থেকে দলের কার্যকর্তাদের উপর হামলা চালাতে পারে শাসকদল৷ সেকারণেই ফলাফল ঘোষণা পর্যন্ত এরাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনী রেখে দেওয়ার আরজি জানিয়েছেন বিজেপি নেতারা৷ পাশাপাশি কমিশন নিযুক্ত বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক এবং বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবেকেও রাজ্য থেকে সরিয়ে না দেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে বলে কমিশন সূত্রে খবর৷

[ আরও পড়ুন: ভোটার তালিকা থেকে উধাও অন্তত ১২ কোটি ভোটারের নাম! কাঠগড়ায় কমিশন ]

বিজেপি-সহ বিরোধীদের দাবি মেনে এবারের নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের একশো শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী নিযুক্ত করেছে কমিশন৷ কিন্তু তাও বিভিন্ন সময়ে সেই বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে দেখা গিয়েছে বিজেপি প্রার্থী ও নেতাদেরই৷ এমত পরিস্থিতিতে সোমবার কমিশনে গিয়ে রাজ্যের একাধিক আসনে গেরুয়া শিবিরের তরফে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানানো হয়েছে বলে সূত্রের খবর৷ এবং এক্ষেত্রেও ইস্যু করা হয়েছে শাসকের সন্ত্রাসকেই৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement