২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  বুধবার ৭ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

২ বছর পর মিরিকের রাস্তায় কালোচিতা! আতঙ্কে কাঁটা স্থানীয়রা

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: November 24, 2022 1:53 pm|    Updated: November 24, 2022 1:53 pm

Black Panther scare creates panic in Mirik | Sangbad Pratidin

স্টাফ রিপোর্টার, শিলিগুড়ি: শহর থেকে চা বাগানের বস্তি এলাকার বাড়িতে ফিরছিলেন মদন ছেত্রী। হঠাৎ চোখের নিমেষে কালো কিছু ছুটে গেল রাস্তার একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই উধাও। আতঙ্কে শিউরে ওঠেন তিনি। দ্রুত বস্তিতে ফিরে যান। কিছুক্ষণ বাদে ওই রাস্তা দিয়ে একটি ছোট গাড়ি আসছিল। চালক দেখেন, কালো একটি জন্তু দাঁড়িয়ে। তিনি মোবাইল ফোনের ক্যামেরায় ছবি তুলে বনদপ্তরের কর্মীদের দেখাতে হইচই শুরু হয়ে যায়। বুধবার বিকেলে মিরিকের ওকাইতি চা বাগান সংলগ্ন নয় নম্বর ডিভিশন লাগোয়া এলাকার ঘটনা।

বনকর্মীরা প্রাণীর ছবি দেখে গাড়ির চালককে জানান, প্রাণীটি ‘ব্ল্যাক প্যান্থার’ (Black Panther) অর্থাৎ কালোচিতা। উত্তরবঙ্গের বনপাল (বন্যপ্রাণ) রাজেন্দ্র জাখর অবশ্য বলেন, ‘‘অবাক হওয়ার মতো কিছু নেই। পাহাড়ে প্রায়ই ব্ল্যাক প্যান্থার দেখা যায়। ওরা লেপার্ডের মতো ঘুরে বেড়ায়। কেন পথচারী অবাক হয়েছেন বুঝলাম না।’’ বন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, এর আগে ২০২০ সালে মিরিকে কালোচিতার দেখা মিলেছিল। চলতি বছরে বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের জঙ্গলে এবং জয়ন্তী এলাকায় ব্ল্যাক প্যান্থারের দেখা মেলে। কার্শিয়াংয়ের ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার বিশ্বনাথ প্রতাপ বলেন, ‘‘মিরিকে যে প্রাণীর দেখা মিলেছে সেটি কালোচিতা। আমরা খোঁজ নিচ্ছি। এলাকায় নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।’

[আরও পড়ুন: কলেজের মাঠে ফিল্মি কায়দায় প্রেম নিবেদন! ভিডিও ভাইরাল হতেই নোটিস ছাত্রছাত্রীদের]

উত্তরবঙ্গের বনপাল (বন্যপ্রাণ) জানান, চা বাগান থাকলে লেপার্ডের দেখা মিলতেই পারে। তবে কালোচিতা দেখলে নজর কাড়ে। আতঙ্ক বাড়ে। সম্প্রতি মিরিক সংলগ্ন রংটং এলাকায় রাস্তা পারাপারের সময় গাড়ির ধাক্কায় একটি কালোচিতার মৃত্যু হয়। অন্যদিকে ভল্লুক এখন পাহাড়-সমতল সর্বত্র। দার্জিলিংয়ের ঘুম এলাকায় এদিন একটি ভল্লুককে ঘুরে বেড়াতে দেখা গিয়েছে। সিসিটিভি ক্যামেরায় ওই ছবি ধরা পড়েছে৷ সেটা নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। যদিও বনকর্তারা জানিয়েছেন, কালোচিতা যেমন সবসময় দেখা যায়, একইভাবে ঘুমে যাওয়ার আগে এই সময় ভল্লুক খাবারের সন্ধানে লোকালয়ে ঢুকে পড়ে। তাই এটা নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই। সতর্ক থাকতে হবে।

[আরও পড়ুন: মাঝরাতে পড়ুয়া ও নিরাপত্তারক্ষীদের হাতাহাতি, ১০ ঘণ্টা পর ঘেরাওমুক্ত বিশ্বভারতীর উপাচার্য]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে