BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

তীব্র বিস্ফোরণ, নিমেষে গোটা বাড়ি পরিণত হল ধ্বংসস্তূপে! আতঙ্কে কাঁটা গ্রামবাসীরা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 4, 2020 5:49 pm|    Updated: August 4, 2020 5:49 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তীব্র বিস্ফোরণে (Blast) উড়ে গেল গোটা বাড়ি। চাঞ্চল্যকর ঘটনার সাক্ষী বীরভূমের ইলামবাজারের জালালনগর। সাতসকালে বিস্ফোরণের প্রবল শব্দে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে গ্রামে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রাথমিক তদন্তের পর জানায়, বাড়িটিতে প্রচুর বোমা মজুত ছিল। তা একসঙ্গে ফেটে যাওয়ায় এমন দুর্ঘটনা। তবে বাড়িটি পরিত্যক্ত হওয়ায় প্রাণহানি ঘটেনি। পুলিশের সন্দেহ, গ্রামের ফাঁকা বাড়িটিকেই কেউ বা কারা বোমা মজুত করার জন্য বেছে নিয়েছিল। তবে তাদের সেই অকুস্থল এখন স্রেফ ধ্বংসস্তূপ। তদন্তে নেমেছে ইলামবাজার থানার পুলিশ।

জানা গিয়েছে, ইলামবাজারের জালালনগর গ্রামের বৃদ্ধ কাসেম আলি। দীর্ঘদিন আগেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। আর তারপর থেকেই তাঁর এই পাকা বাড়িটি পড়েছিল পরিত্যক্ত অবস্থায়। কেউ সেখানে থাকতেনও না, দখলও হয়নি। এতদিন কেউ ঘুরেও তাকায়নি। নজর পড়ল মঙ্গলবার সকালে। তীব্র শব্দ আর হুড়মুড়িয়ে বাড়ি ভেঙে পড়ার মতো ভয়াবহ ছবি ভেসে উঠল। বিস্ফোরণের তীব্রতায় বাড়ির ইটগুলো পর্যন্ত ভেঙেচুরে ধসে পড়েছে। বাড়ির কাঠামোই বোঝা যাচ্ছে না। ভিতরে স্রেফ ইটের গুড়ো আর বারুদের তীব্র গন্ধ ছাড়া কিচ্ছুটি নেই। সব মাটিতে একেবারে মিশে গিয়েছে। এক মুহূর্তে একটা গোটা বাড়ি এভাবে ধ্বংসস্তূপে বদলে যাওয়ার ছবি দেখতে অনেকেই সকালে ভিড় জমিয়েছিলেন বাড়ির সামনে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকাবাসীর নিরাপত্তার স্বার্থে তাঁদের সরিয়ে দিয়েছে।

[আরও পড়ুন: প্রকাশ্যে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান ঘাটালের তৃণমূল বিধায়কের, দলবদলের ইঙ্গিত? তুঙ্গে জল্পনা]

প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান, বাড়িটি পরিত্যক্ত ছিল। মালিকানা দাবি করার মতোও কেউ ছিল না। সেই সুযোগ নিয়েই দুষ্কৃতীরা সেখানে ডেরা বেঁধেছিল। মজুত করা হয়েছিল প্রচুর বোমা (Bombs)। কিন্তু কে বা কারা, কী কারণে বিস্ফোরক জমা করছিল এখানে, তা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। গ্রামে কোনওরকম দুষ্কৃতীমূলক কার্যকলাপ চলছিল কি না, বা তেমন কোনও সন্দেহজনক কিছু কারও চোখে পড়েছে কি না, এসব জানতে গ্রামবাসীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। কেউই এ বিষয়ে সঠিক কোনও হদিশ দিতে পারেননি। কারণ, পরিত্যক্ত বাড়িটার উপর কারও নজরই ছিল না যে। বড়সড় কোনও নাশকতার ছক করা হচ্ছিল কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: জাতীয় শিক্ষানীতির প্রতিবাদে কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়াচ্ছে SFI, প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো হবে গণচিঠি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement