২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জাতীয় শিক্ষানীতির প্রতিবাদে কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়াচ্ছে SFI, প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো হবে গণচিঠি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 4, 2020 2:43 pm|    Updated: August 4, 2020 2:47 pm

An Images

বুদ্ধদেব সেনগুপ্ত: নতুন জাতীয় শিক্ষানীতি (NEP 2020) নিয়ে সবচেয়ে আগে প্রতিবাদে নেমেছে বামপন্থী ছাত্র সংগঠন এসএফআই। ঘোষণা হওয়ার পরদিনই হুগলির সিঙ্গুরে প্রতীকী পথ অবরোধ করে বিরোধিতায় নেমেছিলেন সংগঠনের সদস্যরা। পরবর্তী সময়ে সল্টলেকেও সেই একই কর্মসূচি পালিত হয়। পোস্টারে লেখা, নতুন শিক্ষানীতি প্রত্যাহার করতে হবে। এই দাবির স্বপক্ষে যুক্তি হিসেবে তাঁদের বক্তব্য ছিল, নতুন পদ্ধতিতে গরিব পড়ুয়াদের কাছ থেকে শিক্ষার অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। মহার্ঘ হচ্ছে শিক্ষা। এবার আরও বড় আন্দোলনের নামছে এসএফআই (SFI)। প্রধানমন্ত্রীর কাছে গণচিঠি পাঠাবে রাজ্য সংগঠনের সদস্যরা। জানালেন এসএফআই রাজ্য সম্পাদক সৃজন ভট্টাচার্য।

কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়াতে একগুচ্ছ পরিকল্পনা গ্রহণ করল এসএফআইয়ের রাজ্য সংগঠন। মঙ্গলবার ভিডিওবার্তায় তা জানিয়েছেন রাজ্য সম্পাদক সৃজন ভট্টাচার্য। তাঁর বক্তব্য, নতুন শিক্ষানীতি প্রকৃত শিক্ষাগ্রহণের অন্তরায়। এটা স্রেফ কর্মমুখী, সস্তায় শ্রমিক তৈরির হাতিয়ার। এছাড়া ভাষা আগ্রাসনও রয়েছে এই নীতিতে। তাই তা মোটেই গ্রহণযোগ্য নয়। অতএব, প্রত্যাহারের দাবি জোরাল হচ্ছে তাদের তরফে। এই অবস্থায় চাপ বাড়াতে তাদের প্রথম পরিকল্পনা, প্রধানমন্ত্রীকে গণচিঠি দেওয়া। আগামী ৬ তারিখ থেকে দফায় দফায় মোট ১ লক্ষ চিঠি পাঠানো হবে।

[আরও পডুন: বারুইপুর বাজারে অগ্নিকাণ্ডের নেপথ্যে প্রোমোটার চক্র, অভিযোগ তুলেই মার খেলেন সুজন]

এরপর রয়েছে আরও পরিকল্পনা। ১১ আগস্ট ক্ষুদিরাম বসুর শহিদ দিবস। ওইদিন রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবে এসআফআই রাজ্য নেতৃত্ব। সঙ্গে থাকবেন অধ্যাপক, শিক্ষক, অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীরাও। ভিডিও বার্তায় এই কর্মসূচির কথাও জানিয়েছেন রাজ্য সম্পাদক সৃজন ভট্টাচার্য। এছাড়া রাজ্য সরকারকেও আলাদাভাবে শিক্ষানীতি নিয়ে চিঠি পাঠাবে এসএফআই। কারণ, রাজ্য সরকারও শিক্ষানীতি নিয়ে টালবাহানা করেছে বলে অভিযোগ বামপন্থী ছাত্র সংগঠমনের। সংশ্লিষ্ট মহলের একাংশের মত, কেন্দ্রের নয়া শিক্ষানীতি নিয়ে সবার আগে নিজেদের ছাত্র সংগঠনকে ফের আন্দোলনে নেমে নিজেদের প্রাসঙ্গিকতা ফিরে পেতে চাইছেন বামপন্থীরা।

[আরও পডুন: যুব তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদকের সংবর্ধনাকে ঘিরে দলেরই দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ, জখম ৪]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement