১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  রবিবার ৩ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বিছানায় দম্পতির দেহ, পাশে বিষের শিশি, জোড়ামৃত্যুর ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য মেদিনীপুর

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: March 15, 2022 6:46 pm|    Updated: March 15, 2022 6:46 pm

Body of a couple found in home at medinipur | Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

শ্রীকান্ত পাত্র, ঘাটাল: সাত সকালেই দম্পতির রহস্যমৃত্যু। ঘর থেকে উদ্ধার হল নিথর দেহ। ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুরের (Daspur) রামচন্দ্রপুর গ্রামে।

মৃত দম্পতির নাম মোহন মণ্ডল (৫২) ও রীতা মণ্ডল (৪৩)। পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, দম্পতির একমাত্র ছেলে অরূপ মণ্ডল কর্মসূত্রে থাকেন মুর্শিদাবাদে। তিনি একটি বেসরকারি মেডিক্যাল ল্যাবে কাজ করেন। দু’দিন আগে বাড়ি ফিরেছেন। সোমবার রাতে বাবা মা ও ছেলে একসঙ্গে রাতের খাবার খেয়ে শুতে যান। খাওয়ার সময় বাড়ির ছাদ ঢালাই নিয়ে তিনজনের মধ্যে তুমুল কথা কাটাকাটি হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। সকালে উদ্ধার হয় দম্পতির দেহ। পাশে মিলেছে বিষের বোতল। অরূপবাবু বলেন, “বাড়ির ছাদ ঢালাই নিয়ে বাবা-মায়ের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়েছিল। তারপর থেমেও যায়। বাব মা একসঙ্গে ঘুমতে চলে যায়। আমি দোতলার ঘরে চলে যাই। সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি বাবা মা মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। মনে হয় বাবা মা বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে।”

[আরও পড়ুন: পুরুলিয়ায় কংগ্রেস কাউন্সিলর খুনে চাঞ্চল্য, ভাইরাল নিহতের ভাইপোর সঙ্গে IC’র কথোপকথন!]

স্বামী-স্ত্রীর একসঙ্গে এই অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, দম্পতির ঘর থেকে যে বিষ পাওয়া গিয়েছে তা দিয়ে চাষিরা আগাছা দমন করেন। প্রতিবেশী স্বপন বেরা বলেন, “বিষপান করে মৃত্যু বরণ করলেও মরার আগে বাঁচার জন্য ছটফটানি হওয়ার কথা। ঘরের মধ্যে তার কোনও চিহ্ন দেখা যায়নি। যেন মনে হচ্ছে দুজনেই আলাদাভাবে ঘুমোচ্ছে। দরজা খোলা। বিছানা স্বাভাবিক রয়েছে। এটা হয় কী করে?”

একইভাবে প্রশ্ন তুলেছেন আর এক প্রতিবেশী অশোক মাইতি। তিনি বলেন, “ওঁদের ছেলে অরূপের স্বভাব চরিত্র ভাল নয়। বছরখানেক আগে অরূপ কিডন্যাপের গল্প ফেঁদে তিন লক্ষ টাকা বাবা মার কাছে দাবি করেছিল। পরে তা ধরা পড়ে যায়। যদি তাঁরা বিষপান করেই মরে যেতে চায় তাহলে ঘরের দরজা খোলা রাখবে কেন? চুপচাপ বিষ খেল আর চুপচাপ মরে গেল এটা হতে পারে? পুলিশি তদন্ত হোক।” অবশ্য পুলিশ কোনও মুখ খুলতে চায়নি। দাসপুরের ওসি অমিত মুখোপাধ্যায় বলেন, “ময়না তদন্ত না হলে কিছুই বলা যাবে না।”

[আরও পড়ুন: লাগাতার ছাত্র বিক্ষোভ, প্রশাসনিক চাপের মুখে পদত্যাগ করলেন বিশ্বভারতীর রেজিস্ট্রার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে