BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

গঙ্গায় ভেসে উঠল হুগলির নিখোঁজ NEET পরীক্ষার্থীর দেহ, খুন নাকি আত্মহত্যা? ধন্দে পুলিশ

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: September 11, 2020 12:38 pm|    Updated: September 11, 2020 12:40 pm

An Images

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: তিনদিন পর উদ্ধার হল হুগলির (Hooghly) উত্তরপাড়ার নিখোঁজ NEET পরীক্ষার্থীর নিথর দেহ। শুক্রবার গঙ্গায় ভাসতে দেখা যায় ওই যুবকের দেহ। ইতিমধ্যেই দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। ছেলের মৃত্যু সংবাদে কান্নায় ভেঙে পড়েছে মণ্ডল পরিবার।

জানা গিয়েছে, এদিন সকালে গঙ্গায় একটি দেহ ভাসতে দেখেন ওই এলাকার বাসিন্দারা। স্বাভাবিকভাবেই তাঁরা খবর দেয় পুলিশে। উত্তরপাড়া থানার তরফে দেহটি উদ্ধারের পর খবর দেওয়া হয় নিখোঁজ অভীক মণ্ডলের বাড়িতে। পরিবারের সদস্যরা গিয়েই শনাক্ত করে ওই NEET পরীক্ষার্থীকে। কিন্তু কেন প্রাণ গেল তরতাজা যুবকের? আত্মঘাতী হয়েছেন ওই মেধাবী ছাত্রী নাকি খুন করা হয়েছে তাঁকে? কারণই বা কী, এহেন একাধিক প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে উত্তরপাড়া থানার পুলিশ।

প্রসঙ্গত, অভীক মণ্ডল নামে উত্তরপাড়ার এই যুবক চলতি বছরে উচ্চ মাধ্যমিকে ৯৪ শতাংশ নম্বর পেয়ে পাশ করেছে। তারপর সে কলকাতার সুরেন্দ্রনাথ কলেজে মাইক্রোবায়োলজিতে অনার্স নিয়ে ভরতি হয়। তবে তাঁর লক্ষ্য ডাক্তারি পড়া। ফলে আগামী রবিবার, ১৩ তারিখ, NEET’এর জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিল। মঙ্গলবার দুপুরে বাবা অফিস থেকে বাড়ি ফিরে আসার পর বাবা, মা সকলকে চা করে খাওয়ায় অভীক। এরপর রাত আটটা নাগাদ মা, বাবাকে সে জানায় যে NEET’এর অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোড করে সাইবার ক্যাফে থেকে প্রিন্ট বের করতে যাচ্ছে। মা ঝর্ণা মণ্ডল ছেলের সঙ্গে যেতে চান। কিন্তু অভীক জানায়, ১৫ মিনিটের মধ্যে সে ফিরে আসবে, মায়ের যাওয়ার দরকার নেই।

[আরও পড়ুন: শনিবার লকডাউন উঠলেও বাতিল পদাতিক এক্সপ্রেস, বিপাকে NEET পরীক্ষার্থীরা]

কিন্তু দীর্ঘক্ষণ বাড়িতে না ফেরায় সবাই খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। স্থানীয় সাইবার ক্যাফেতে গিয়ে বাবা জিজ্ঞাসাও করেন, ছেলে এসেছিল কিনা। ক্যাফে মালিক তাকে জানান অভীক সাড়ে আটটা নাগাদ প্রিন্ট আউট নিয়ে চলে গেছে। এই খোঁজাখুঁজির মাঝেই অভীকের সাইকেলটি বারো মন্দির গঙ্গার ঘাট থেকে উদ্ধার হয়। বাবা সুভাষ মণ্ডল জানিয়েছেন, ছেলে ফোন নিয়ে বেরোয়নি। তাই তার সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি কোনওভাবেই। এরপর ফোন ঘাঁটাঘাঁটি করতে গিয়ে তিনি উদ্ধার করেন যে, ছেলে ফোনের সমস্ত হোয়াটস অ্যাপ (WhatsApp) মেসেজ মুছে দিয়েছে। এর আগেও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার আগেও সমস্ত হোয়াটস অ্যাপ মেসেজ ডিলিট করে দিয়েছিল অভীক। তবে কী এই ডিলিট করা মেসেজেই লুকিয়ে আসল রহস্য? রহস্যের শিকড়ে পৌঁছনোর চেষ্টায় তদন্তকারীরা। 

[আরও পড়ুন: ফের ঊর্ধ্বমুখী রাজ্যের করোনা গ্রাফ, মোট সংক্রমিতের সংখ্যা ২ লক্ষ ছুঁইছুঁই]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement