১ শ্রাবণ  ১৪২৬  বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তৃণমূল কংগ্রেসে ভাঙন অব্যাহত। লোকসভা ভোটের পর রাজ্যে একের পর এক বিধায়ক, কাউন্সিলর, পঞ্চায়েত সদস্যকে ভাঙিয়ে নিয়ে যাচ্ছে বিজেপি। সোমবারই দিল্লিতে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখান অর্জুন সিংয়ের ভগ্নিপতি তথা নোয়াপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক সুনীল সিং। সেইসঙ্গে গাড়ুলিয়া পুরসভার ১৬ জন কাউন্সিলর। এবার সেই পথে পা বাড়ালেন বনগাঁ উত্তর বিধানসভার তৃণমূল বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস ও বনগাঁ পুরসভার ১৪ জন কাউন্সিলর। সূত্রের খবর, এরা প্রত্যেকেই বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন। মুকুল রায়ের সঙ্গে তাঁর দিল্লির বাসভবনে দেখা করেন তাঁরা।

[আরও পড়ুন: ‘কটা উইকেট পড়ল?’, সাংবাদিক বৈঠকে প্রশ্ন করে বিতর্কে বিহারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী]

প্রসঙ্গত, লোকসভা ভোটে ভরাডুবির পর তৃণমূল পরিচালিত বনগাঁ পুরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেন ১১ জন কাউন্সিলর। তাঁরা পুরপ্রধান শংকর আঢ্যর বিরুদ্ধে অনাস্থা পেশ করেন। তারপর আরও তিনজন কাউন্সিলর সেই পথে হাঁটেন। তখন বিক্ষোভের মুখে পড়ে শংকর আঢ্য জানান, কাউন্সিলররা না চাইলে তিনি পদত্যাগ করতে রাজি। বিদ্রোহী ১৪ জন কাউন্সিলর নিখোঁজ জানিয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন চেয়ারম্যান। তখনই বিদ্রোহীদের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জল্পনা ওঠে। এরপর গত রবিবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল কমিটির পক্ষ থেকে শংকর আঢ্যকে নির্দেশ দেওয়া হয় পদত্যাগের জন্য। আর এও জানানো হয়, দল নয় নয়া চেয়ারম্যান ঠিক করবেন ১৪ জন কাউন্সিলরই।

[আরও পড়ুন: বিজেপিতে অর্জুন-আত্মীয় সুনীল সিং, যোগদান গাড়ুলিয়া পুরসভার ১৬ কাউন্সিলরেরও]

তবে তৃণমূলের তরফ থেকে এত কিছু করার পরও সেই বিজেপিতেই যাচ্ছেন বনগাঁর বিদ্রোহী কাউন্সিলররা। এবং তাঁদের এই দলবদলের নেতৃত্বে বনগাঁ উত্তরের বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস। শোনা যাচ্ছে, আজ, মঙ্গলবারই বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন তাঁরা। এদিকে, নজরুল মঞ্চে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকা বৈঠকে রাজ্যের বেশ কিছু পুরসভার দলীয় কাউন্সিলরের অনুপস্থিতি আরও ভাঙনের ইঙ্গিত দিয়ে রাখছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং