BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

ফ্ল্যাট কিনতে চাই ১৫ লক্ষ টাকা, না পেয়ে বউদিকে খুন করল দেওর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 29, 2018 2:49 pm|    Updated: January 29, 2018 2:49 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রতিদিন নিত্য-নতুন বায়না। শ্বশুরবাড়ির অনেক অন্যায় আবদার মিটিয়েছিল বধূ। এবার ফ্ল্যাট কেনার জন্য চাপ। দশ, বিশ হাজার নয় একেবারে ১৫ লক্ষ টাকা। তা দিতে না পারায় গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ উঠল দেওর ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে। দুই অভিযুক্তেক গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে  জানা গিয়েছে, ধৃতরা হলেন পরেশনাথ ভট্টাচার্য ও সন্ধ্যা ভট্টাচার্য। তারা তমলুকের যশবন্তপুর এলাকার বাসিন্দা। বছর দেড়েক আগে এই গ্রামের যুবক স্বরোজ ভট্টাচার্যের সঙ্গে দেখাশুনা করে বিয়ে হয় ঘাটালের মেয়ে ২৬বছরের রাজশ্রী চক্রবর্তী ভট্টাচার্যের। পেশায় স্বরোজ গৃহশিক্ষক। তাদের সাত মাসের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। অভিযোগ বিয়ের পর থেকেই রাজশ্রীর উপর শারীরিক এবং মানসিক অত্যাচার চালাত শশুরবাড়ির লোকজন। কয়েকদিন হল এই অত্যাচারের মাত্রা বাড়তে শুরু করে। এরপর রবিবার শশুরবাড়ি থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ায়। খবর পেয়ে ছুটে আসেন বাপের বাড়ির লোকজন, তাঁদের অভিযোগ রাজশ্রীর শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে। রবিবারই পুলিশের কাছে এই অভিযোগ দায়ের করেন রাজশ্রীর পরিবার। এদিকে ঘটনার পর থেকেই স্বামী, শ্বশুর, শ্বাশুড়ি, ননদ এবং দেওর গা ঢাকা দিয়েছিল। তবে লিখিত অভিযোগ পেয়েই তদন্তে নেমে দেওর ও শাশুড়িকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

[ঘুমের ‘কোটা’ পূর্ণ হয়নি চালকের, চার ঘণ্টা দেরিতে ছাড়ল ট্রেন]

এদিন আদালতে এসে ক্ষোভ উগরে দেন মৃতার ভাই অর্কদীপ। তিনি বলেন, ‘বিয়ের মাত্র দু মাস পর থেকেই অতিরিক্ত পণের দাবিতে দিদির উপর অকথ্য অত্যাচার চালাত শশুরবাড়ির লোকজন। এরপর সম্প্রতি তমলুকে একটি ফ্ল্যাট কেনার নাম করে বাপেরবাড়ি থেকে টাকা চেয়ে আনার জন্য জোর করতে থাকেন জামাইবাবু। কিন্ত ১৫ লক্ষ টাকার মতো বিপুর অঙ্কের টাকা দেওয়ার ক্ষমতা আমাদের নেই। তাই টাকা না পেয়ে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছিল ওরা। ঘটনার দিন সকাল ৭টা নাগাদ বাবাকে সব কথা ফোন করে জানিয়েছিল দিদি, আর তারপর সকাল ১০টায় দিদির মৃত্যু সংবাদ পাই। ওদের দাবি দিদি গলায় দড়ি দিয়েছে। কিন্ত কোনও ভাবেই এটা আত্মহত্যা হতে পারে না। টাকা না পেয়ে ওরাই বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে দিদিকে খুন করেছে। আমরা  অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তির দাবি রাখি।’ সরকারি আইনজীবী সফিউল আলি খান জানান, ‘গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত দেওর ও শাশুড়িকে ৫দিনের পুলিশ হেফাজতে ও ১৪দিনের জেল হেফাজত দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।’

[মৃতদের পরিবার পিছু ৫ লক্ষ টাকা আর্থিক অনুদানের ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর]

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement