৯ ফাল্গুন  ১৪২৬  শনিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বাবুল হক ও সুকুমার সরকার,: ভারত থেকে বাংলাদেশে গরু পাচারের সময় খতম হল তিন বাংলাদেশি নাগরিক। বৃহস্পতিবার ভোরে ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের হাবিবপুর সীমান্তে। বাংলাদেশের দুয়ারপাল উপজেলার নীলমারি বিল সীমান্তের ঠিক উলটো পারে। মৃতরা হল পোরশা উপজেলার বিষ্ণুপুর বিজলীপাড়ার গ্রামের শুকরার ছেলে সঞ্জিত ওঁরাও, কাঁটাপুকুর গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে কামাল এবং চকবিষ্ণুপুর দিঘিপাড়ার খোদাবক্সের ছেলে মফিজুলউদ্দিন।

Bangladeshi body

এই ঘটনা কেন্দ্র করে আজ সকালে মালদহের হবিবপুর থানার শিরসি কলাইবাড়ি সীমান্তে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। সীমান্তে গুলিবিদ্ধ জোড়া মৃতদেহ পড়ে থাকার খবর পেয়ে কলাইবাড়ি এলাকায় ছুটে যায় হবিবপুর থানার আইসি পূর্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশের হস্তক্ষেপে উত্তেজনা প্রশমিত হয়। এরপর নিয়ম মেনে দেহগুলি ও ঘটনাস্থলের ভিডিও তোলে পুলিশ।  ময়নাতদন্তের জন্য দেহগুলি মালদহ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এর পাশাপাশি একজনকে গ্রেপ্তার করে জেরা করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: সভার আগেই টিটাগড়ে কানহাইয়ার নামে বিতর্কিত পোস্টার, আটক ৮ বিজেপি কর্মী ]

 

বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড(BGB) সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার রাতে বাংলাদেশের বেশ কিছু গরু ব্যবসায়ী সীমান্ত পার করে দক্ষিণ দিনাজপুর দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে। বৃহস্পতিবার ভোরে গরু নিয়ে ভোরে ভারত ও বাংলাদেশ সীমান্তের ২৩১/১০ (S) মেন পিলার এলাকা দিয়ে ফের বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা করছিল। সেসময় ক্যাদারিপাড়া ক্যাম্পের টহলদারি দলের BSF জওয়ানদের চোখে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে ওই ব্যবসায়ীদের পিছন থেকে গুলি করে বিএসএফ। অন্যরা পালিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়তে পারলেও ঘটনাস্থলেই মারা যায় সঞ্জিত ও কামাল। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মফিজুল বাংলাদেশে ঢুকে পড়লেও পরে মারা যায়।

[আরও পড়ুন: বাংলাদেশে হানা ভয়ানক নিপা ভাইরাসের, মৃত্যু ২ আক্রান্তের ]

 

বৃহস্পতিবার এই ঘটনার কথা সত্যি বলে স্বীকার করেছেন BGB-এর ১৬ নম্বর হাঁপানিয়া ক্যাম্পের কমান্ডার নায়েব সুবেদার মোখলেছুর রহমান। এপ্রসঙ্গে তিনি জানান, বেশ কিছুদিন ধরে গরু ব্যবসা করত  সঞ্জিত,  কামাল এবং মফিজুলউদ্দিন। অন্যবারে মতো বুধবার রাতে ভারতে ঢুকে গরু কিনে ছিল। তারপর বৃহস্পতিবার ভোরে সেগুলি নিয়ে বাকি সঙ্গীদের সঙ্গে বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা করে। BSF জওয়ানরা বিষয়টি দেখতে পেয়ে তাদের গুলি করে। এর জেরে দুজনের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়। বাকি একজন বাংলাদেশে ঢুকে পড়ার পর মারা যায়। বিষয়টি নিয়ে ওই এলাকায় উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। এই প্রসঙ্গে বিজিবির ১৬ নম্বর (নওগাঁ) ব্যাটলিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফুল ইসলাম জানান, এই বিষয়ে ফ্ল্যাগ মিটিং করার জন্য বিএসএফকে চিঠি দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং