২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সামান্য বচসা, বর্ধমান মেডিক্যালের নিরাপত্তারক্ষীর লাঠির ঘায়ে মাথা ফাটল রোগীর আত্মীয়ের

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 19, 2020 8:41 pm|    Updated: September 19, 2020 11:31 pm

An Images

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: হাসপাতালে ভরতি থাকা রোগীকে (Patient) দেখতে এসে নিরাপত্তারক্ষীর লাঠির আঘাতে মাথা ফাটল এক আত্মীয়ের। তাঁর মাথায় দু’টি সেলাই করতে হয়েছে। ঘটনায় শনিবার উত্তেজনা ছড়ায় বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (Burdwan Medical College)। আহত শেখ কওসর আলি হাসপাতাল সুপারের কাছে নিরাপত্তরক্ষীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

পূর্ব বর্ধমানের বুদবুদ থানার তিলডাঙা গ্রামে বাড়ি কওসরের। তাঁর জামাই হিরালাল মিদ্দা অসুস্থ হয়ে এই হাসপাতালে ভরতি। এদিন অস্ত্রোপচারের আগে কওসর তাঁর জামাইবাবু শেখ জিকরিয়া-সহ আরও দু’জনকে নিয়ে চিকিৎসকের কথা মতো অপারেশন থিয়েটারের বাইরে অপেক্ষা করছিলেন। দুপুরের দিকে হাসপাতালে কর্মরত কয়েকজন বেসরকারি সংস্থার নিরাপত্তারক্ষী এসে তাঁদের চলে যেতে বলে। নিরাপত্তারক্ষীদের জানান, চিকিৎসক তাঁদের এখানে থাকতে বলেছেন। এই কথা কাটাকাটি শুরু হয়। কওসর জানান, মাস্ক নেই কেন, মুখে গামছা কেন এইসব নিয়ে তাঁদের বচসা শুরু হয়। ধাক্কা মারতে মারতে বের করে দেওয়ার সময় একজন নিরাপত্তারক্ষী আচমকা লাঠি দিয়ে তাঁর মাথায় আঘাত করে। রক্ত ঝরতে থাকে। তাতেও কোনও পরোয়া না করে তাঁদের সেখান থেকে বের করে দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন: পরপর দু’দিন রাজ্যে সামান্য কমল সংক্রমিত ও মৃতের সংখ্যা, ক্রমশ বাড়ছে সুস্থতার হার]

এরপর হাসপাতালেই চিকিৎসা করান কওসর। ক্ষত গভীর হওয়ায় তার মাথায় দু’টি সেলাই করতে হয়েছে। পরে তাঁরা সুপারের কাছে অভিযোগ জানান। ডেপুটি সুপার কুণালকান্তি দে জানান, ঘটনার সময়ের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নিরাপত্তার নামে কারও মাথা ফাটিয়ে দেওয়া অনুচিত কাজ।

[আরও পড়ুন: প্রাক্তন ছাত্রকে ভরসা করে নিঃস্ব অশীতিপর শিক্ষক, ভাগ্যে জুটল প্রাণনাশের হুমকিও]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement