৩০ চৈত্র  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

লালার কাছ থেকে কারা কিনত কয়লা? হদিশ পেতে কলকাতা-সহ রাজ্যের ৫ এলাকায় তল্লাশি সিবিআইয়ের

Published by: Paramita Paul |    Posted: March 16, 2021 10:51 am|    Updated: March 16, 2021 10:51 am

An Images

শেখর চন্দ্র, আসানসোল: অনুপ মাজি ওরফে লালা কাকে পাচার করত কয়লা? কে কিনত ওই বিপুল পরিমাণ অবৈধ কয়লা? এবার সেই ক্রেতাদের হদিশ পেতে রাজ্যে তল্লাশি শুরু করল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা (CBI)। মঙ্গলবার সকাল থেকেই কলকাতার (Kolkata) শেক্সপিয়র সরণি-সহ রাজ্যের পাঁচ এলাকায় তল্লাশি চালাচ্ছে তদন্তকারী দল।

সিবিআই সূত্রে খবর, কলকাতা ছাড়া আসানসোল (Asansole), দুর্গাপুর, বরাকর-সহ মোট ৫টি এলাকায় তল্লাশি চলছে। মূলত এক লৌহ ইস্পাত শিল্পগোষ্ঠীর মালিক অমিত আগরওয়াল ও সনু আগরওয়ালের খোঁজে নেমেছে সিবিআইয়ের দল। এই দুই ভাই কুলটির বরাকরের আদি বাসিন্দা। তাঁদের ঝাড়খণ্ড, দুর্গাপুর, কাঁকসা, বাঁকুড়ায় ১৩-১৪টি কারখানা রয়েছে। সূত্রের খবর, সেই লৌহ ইস্পাত কারখানার চালাতেই লালার কাছে থেকে ওই কয়লা কিনত বলে খবর।

[আরও পড়ুন : ফের রীতি বদল! দোলের দিন নয়, আজই বসন্ত উৎসব বিশ্বভারতীতে]

এদিন সকালে ৪টি চার চাকার গাড়িতে ১০ জন তদন্তকারী আধিকারিক অমিত আগরওয়াল ও সনু আগরওয়ালেরর বরাকরের বাড়িতে হাজির হন। সেখানে দুজনের খোঁজ মেলেনি। পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করছেন ওই আধিকারিকরা। এদিকে শেক্সপিয়র সরণীতে তাদের অফিসেও চলছে তল্লাশি অভিযান। তদন্তকারীদের ধারণা, এই দুই শিল্পপতিদের কাছ থেকে লালার ব্যবসার খুঁটিনাটি জানা যাবে। উল্লেখ্য, অমিত ও সনুর বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। বছর দুয়েক আগে তাঁদের বাড়িতে হানা দিয়েছিল NIA-ও। দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে ঝাড়খণ্ডের মাওবাদিদের অর্থ সাহায্যের অভিযোগ রয়েছে।

অন্যদিকে, এদিন হাওড়ার বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি চালাচ্ছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটও। কলকাতা থেকে বিদেশে বাঘ, বাঘের বাচ্চা-সহ একাধিক বন্যপ্রাণ পাচাকেক অভিযোগ রয়েছে। সেই মামলার তদন্তেই নেমে এই তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে তারা। সূত্রের খবর, এই বন্যপ্রাণ পাচারের সঙ্গে কয়েক কোটি টাকার লেনদেন জড়িত রয়েছে। পাচারচক্রের হদিশ পেতেই উঠেপড়ে লেগেছে ইডি। 

[আরও পড়ুন : জ্ঞানেশ্বরী কাণ্ডে মদত ছিল মমতার! বিস্ফোরক অভিযোগ বিজেপি নেতার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement