BREAKING NEWS

১২ কার্তিক  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

আসানসোলের তৃণমূল নেতারা ‘কাপুরুষ’, আক্রান্ত দলীয় কর্মীর সঙ্গে দেখা করে তোপ বাবুলের

Published by: Sayani Sen |    Posted: February 29, 2020 9:36 am|    Updated: February 29, 2020 9:36 am

An Images

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল: আক্রান্ত প্রবীণ বিজেপি সমর্থক এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করলেন আসানসোলের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo)। শুক্রবার সন্ধ্যায় সালানপুর ব্লকের রূপনারায়ণপুরের আমডাঙায় তিনি পৌঁছান। আক্রান্তদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন তিনি। দলীয় সমর্থককে মারধরের ঘটনায় নাম জড়িয়েছে তৃণমূলের। এদিন কড়া ভাষায় স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের আক্রমণ করেন বাবুল। ‘কাপুরুষ’ বলেই কটাক্ষ তাঁর।

গত ২২ ফেব্রুয়ারি প্রবীণ ওই বিজেপি সমর্থককে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠেছিল স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। দুষ্কৃতীদের কিল-চড়-লাথি-ঘুষিতে জখম হন তিনি। অভিযোগ উঠেছিল সালানপুরের তৃণমূল নেতা ভোলা সিংয়ের নেতৃত্বে ঘটনাটি ঘটানো হয়েছিল। যদিও ভোলার দাবি, ওই ঘটনাটি জলের লাইন নিয়ে পাড়ার লোকেদের সঙ্গে ঝামেলা। কোনও রাজনৈতিক যোগ নেই। জানা গিয়েছে, নন্দকিশোরের ছেলে অনুপ চৌহান তৃণমূল ছেড়ে সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দেন। বুথ কমিটির সভাপতি তিনি। তারপর থেকেই নানাভাবে তার পরিবার হেনস্তার শিকার হচ্ছেন। শুধু নন্দকিশোর নয়, তাঁর ক্যানসার আক্রান্ত স্ত্রী ও বউমা-সহ পরিবারের সকলেই ওইদিন আক্রান্ত হয়েছিলেন।

[আরও পড়ুন: বাড়ি ফিরল পোলবা দুর্ঘটনায় আক্রান্ত দিব্যাংশু, পরিবারে উৎসবের আমেজ]

ঘটনার খবর পেয়ে রবিবার আক্রান্ত বিজেপি সমর্থকের বাড়িতে গিয়েছিলেন যুব মোর্চার জেলা সভাপতি অরিজিৎ রায়। তখনই তিনি আশ্বাস দিয়েছিলেন সাংসদ তথা মন্ত্রীকেও নিয়ে আসবেন আক্রান্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা করাতে। কারণ, বারাবনি ও সালানপুরে বিজেপি কর্মীরা প্রতিদিন আক্রান্ত হচ্ছেন। পার্টি অফিস পুড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। বাবুল শুক্রবার সালানপুরে গিয়ে কর্মীদের বলেন, “সন্ত্রাস করেও তৃণমূল ভোটে জয় পায়নি। এই সালানপুরেই ১৮ হাজার ভোটে ওরা হেরেছে। মানুষ ওদের সঙ্গে নেই।” বারাবনির তৃণমূল নেতা অসিত সিং ও সালানপুরের তৃণমূল নেতা ভোলা সিংকে গুন্ডা বলে কটাক্ষ করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তিনি বলেন, “একটা সময় ছিল যখন নেতারা গুন্ডা পুষতো। কিন্তু কাটমানি যাতে অন্য কোথাও না যায় সেজন্য দলীয় নেত্রী গুন্ডাদেরই ব্লক সভাপতি করেছেন।” ভোলা সিং এবং অসিত সিং বাবুলের কটাক্ষ, “এদের পদবি সিংহ হলেও কাপুরুষের মতো নিরীহ ও বয়স্ক মানুষদের উপর অত্যাচার চালায়।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement