৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo দিল্লি ২০২০ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কোনও গোর্খাকেই দেশ ছেড়ে বেরোতে দেব না, CAA বিরোধী মঞ্চ থেকে বিভিন্ন উপজাতির নাগরিকদের আশ্বস্ত করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কাউকে তাড়াতে চাইলে তাঁকে আগে দেশছাড়া করতে হবে বলেও পালটা কেন্দ্র সরকারকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন তিনি। CAA প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত আন্দোলন জারি থাকবে বলেও এদিনের মঞ্চ থেকে আরও একবার সুর চড়ান রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান।

অসমে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (NRC) করে বাদ গিয়েছে বহু বাঙালি এবং গোর্খার নাম। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (CAA) পাশ হওয়ার পর থেকেই চিন্তিত গোর্খারা। মঙ্গলবার পাহাড়ি পথে হাঁটতে বেরোন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে আশঙ্কার কথা জানতে পারেন তিনি। বুধবার পাহাড়ে CAA বিরোধী মিছিল করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপর সভা করেন। সভামঞ্চ থেকে বারবার গোর্খাদের আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “অসমে NRC করে বহু বাঙালি এবং গোর্খাদের নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। এখন দার্জিলিংয়ে বিপদের দিন। তবে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের মাধ্যমে এ রাজ্যে কিছুতেই কোনও গোর্খাকে বিতাড়িত হতে দেব না। কোনও উপজাতির নাগরিককে বাংলা থেকে তাড়াতে দেব না। দেশ ভাগ করতে দেব না। বাংলায় কোনও ডিটেনশন ক্যাম্প হবে না।” কাউকে তাড়াতে চাইলে আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এ রাজ্য থেকে বের করে দিতে হবে বলেও কেন্দ্রীয় সরকারকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: ভাটপাড়ায় পার্টি অফিস পুনর্দখল ঘিরে অশান্তি, পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ পবন সিংয়ের]

এদিন CAA বিরোধী মিছিল থেকে গেরুয়া শিবিরকে কড়া ভাষায় কটাক্ষ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “মারধর এবং আক্রমণ ছাড়া বিজেপির কোনও কাজ নেই। CAA বিরোধিতা করলেই তাকে এজেন্সির ভয় দেখানো হচ্ছে। ছাত্র, শিক্ষকরা আন্দোলন করলেই তাঁদের মারধর করা হচ্ছে। সব ধামাচাপা দিতে এসব করা হচ্ছে।” সম্প্রতি লখনউতে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় মহিলাদের আন্দোলন করতে দেখা গিয়েছিল। আন্দোলনকারীদের কম্বল কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এই ঘটনাকে উল্লেখ করেও গেরুয়া শিবিরের উদ্দেশে তাঁর প্রশ্ন, “মহিলাদের সম্মান করেন না কেন?” তিনি আরও বলেন, “সত্যি ধামাচাপা দিতে এত অত্যাচার করা হচ্ছে।” বাড়ি বাড়ি ঘুরে কেউ তথ্য সংগ্রহ করতে আসলে, তাঁর প্রশ্নের উত্তর না দেওয়ার অনুরোধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। যদিও বিজেপির দাবি, NRC-NPR-CAA নিয়ে সাধারণ মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী মঞ্চ থেকে বিজেপির অভিযোগের পালটা জবাবে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমরা মিথ্যে বললে সত্যিটা কী আপনারাই বলুন।”

বুধবার সকালে ম্যালের কাছে প্রায় ১০০ ফুট উঁচু মহাকাল মন্দিরে হাজির হন মুখ্যমন্ত্রী। বেশ কিছুক্ষণ সেখানে থাকেন তিনি। পুজো দেন। মন্দির থেকে বেরিয়ে ব্যবসায়ীদের যাতে কোনও সমস্যা না হয় সেদিকে নজর দেওয়ার কথা বলেন। পর্যটনের স্বার্থে যে এলাকাগুলি সাজানো হচ্ছে, সেই কাজ শীঘ্রই শেষ করার নির্দেশও দেন। পুজো সেরেই ভানুভবনে CAA বিরোধী মিছিলে যোগ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং