BREAKING NEWS

৭  আশ্বিন  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ধর্মান্তকরণের পর আদিবাসী তরুণীদের বিয়ে দেওয়ার অভিযোগ VHP’র বিরুদ্ধে, তুমুল সংঘর্ষ

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: February 2, 2020 4:38 pm|    Updated: February 2, 2020 6:01 pm

Clash between VHP and Jharkhand Disom Party in Maldah

ঘটনাস্থলের ফাইল ছবি

বাবুল হক, মালদহ: জোর করে ধর্মান্তকরণের পর বিয়ে দেওয়া। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের বিরুদ্ধে এমন গুরুতর অভিযোগ ঘিরে ধুন্ধুমার মালদহের গাজোলের আলমপুর এলাকা। দু’পক্ষের সংঘর্ষে উত্তপ্ত পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশও। অভিযোগকারী ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সদস্যরা প্রায় আধঘণ্টা ধরে অবরোধ করে রাখলেন ৩৪নং জাতীয় সড়ক। পরে সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দারাই অবরোধ তুলে দেন। ঘটনা ঘিরে তীব্র উত্তেজনা আলমপুরে। অশান্তি এড়াতে মোতায়েন পুলিশ বাহিনী।

ঘটনার সূত্রপাত গণবিবাহের আসর ঘিরে। গাজোলের আলমপুরে প্রায় ২০০ যুবক-যুবতীকে নিয়ে গণবিবাহে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল ভিএইচপি‘। অভিযোগ, বিয়ের অনুষ্ঠান চলাকালীন আচমকাই ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির জনা কয়েক সদস্য সেখানে হাজির হয়ে অশান্তি বাঁধিয়ে দেন। তাঁরা অভিযোগ করেন, আদিবাসী তরুণীদের উপর চাপ দিয়ে তাঁদের ধর্মান্তরিত করেছেন VHP নেতারা। তারপর হিন্দু মতে তাঁদের বিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যা আদিবাসী সম্প্রদায়ের রীতি বিরোধী। তাই তাঁরা এই বিয়ে কিছুতেই মেনে নেবেন না। এই অভিযোগ ঘিরে দু’পক্ষের বচসা শুরু হয়। তারপর তা হাতাহাতিতে পৌঁছয়। হাতে লাঠি, বাঁশ নিয়ে ভিএইচপি কর্মীদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ার অভিযোগ ওঠে ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

[আরও পড়ুন: গ্রামবাসী-BSF সংঘর্ষে রণক্ষেত্র জলঙ্গি, চলল এলোপাথাড়ি গুলি]

পরিস্থিতি ধুন্ধুমার হয়ে ওঠার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় গাজোল থানার পুলিশ। সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে এক পুলিশ কর্মী আক্রান্ত হন। দিনেদুপুরে উত্তপ্ত পরিস্থিতির জেরে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে এলাকা। ৩৪ নং জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির সদস্যরা। আধঘণ্টা পর সেই অবরোধ তুলে দেওয়া হয়। অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করে ফের শুরু হয় গণবিবাহের অনুষ্ঠান।

[আরও পড়ুন: মধ্যযুগীয় বর্বরতা! জমি দখলের প্রতিবাদ করায় ২ মহিলাকে বেধড়ক ‘মার’ তৃণমূলের]

এ নিয়ে ঝাড়খণ্ড দিশম পার্টির এ রাজ্যের এক সদস্য স্পষ্টই বললেন, “আদিবাসীরা হিন্দু নয়, তাঁরা প্রকৃতির উপাসক। তাই হিন্দু মতে আদিবাসীদের বিয়ে হয় না। আমরা এই বিয়ের অনুষ্ঠান মেনে নেব না। এভাবে ধর্মান্তকরণ করে তাঁরা গোটা ভারতের আদিবাসী সমাজকে অপমান করছেন।” অন্যদিকে, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নেতার পালটা দাবি, “ওদের উপাসনার পদ্ধতি আলাদা হতে পারে। কিন্তু ধর্ম নিয়ে ওদের ভুল বোঝানো হয়। ওরা হিন্দুদেরই অংশ।” প্রতি বছর এখানে গণবিবাহের আয়োজন হয়। এবার সেই বিয়ের আসর ঘিরে এমন ধুন্ধুমার কাণ্ডে আতঙ্কিত এলাকাবাসী। তাঁদের নিরাপত্তায় এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

দেখুন ভিডিও:

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে