BREAKING NEWS

৪ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

হাসপাতালে অসুস্থ মান্নানকে দেখতে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: February 11, 2017 11:18 am|    Updated: February 11, 2017 11:19 am

Cm Mamata Banerjee meets Abdul Mannan at Hospital

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজনৈতিক আদর্শে দূরত্ব, মতভেদ থাকতে পারে৷ কিন্তু তা কখনও মানবিকতার পথে বাধা হয়ে উঠতে পারে না৷ সৌজন্যের সেই নজির আজ আরও একবার দেখালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বিধানসভার বিরোধী দলনেতা অসুস্থ আবদুল মান্নানকে আজ হাসপাতালে গিয়ে দেখে এলেন তিনি৷

সম্পত্তি রক্ষা বিল পাশ হওয়ার সময়ই ধুন্ধুমার বাধে বিধানসভায়৷ বিল পাশ আটকাতে বিরোধিতায় নামেন বিরোধী বিধায়করা৷ পোস্টার নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা৷ স্পিকার বিধায়কদের বেশ কয়েকবার শান্ত হওয়ার নির্দেশ দিলেও পরিস্থিতি বিন্দুমাত্র শান্ত হয় না৷ এরপরই বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নানকে সাসপেন্ড করেন স্পিকার৷ কিন্তু তিনি কক্ষ ছাড়তে নারাজ হন৷ মার্শালরা তাঁকে বের করে দিতে গেলে বিধায়কদের সঙ্গে তাঁদের ধস্তাধস্তি বেধে যায়৷ এই অবস্থাতেই অসুস্থ হয়ে পড়েন মান্নানবাবু৷ তাঁকে তড়িঘড়ি পিজিতে নিয়ে যাওয়া হয়৷ পরে তাঁর বুকে পেসমেকার বসানো হয়৷

আকাঙ্ক্ষা খুনের পর পূজার সঙ্গে থাকত উদয়ন

পুরো ঘটনা যখন ঘটে তখন বিধানসভায় নিজের ঘরেই ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ রাজনৈতিক বিরোধিতা তুলে রেখে সেদিনই শাসকদলের পক্ষে ডাঃ মানস ভুঁইয়া ও ডাঃ শশী পাঁজাকে হাসপাতালে দেখা করার নির্দেশ দেন তিনি৷ রাজনৈতিকভাবে অবশ্য শাসকদল বিরোধীদের কাজের নিন্দা করেছে৷ পার্থ চট্টোপাধ্যায় থেকে সুব্রত মুখোপাধ্যায় একযোগে জানিয়েছেন, সংসদীয় গণতন্ত্রের মর্যাদা নষ্ট করেছেন বিরোধীরা৷ বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে বিরোধিতা করলে বিধানসভায় এমন নজিরবিহীন পরিস্থিতি তৈরি হত না বলে অভিমত তাঁদের৷ কিন্তু রাজনীতির এই প্যাঁচ পয়জার সৌজন্যের পথ আগলে দাঁড়ায়নি৷ সেদিনই মানস ভুঁইয়া সৌজন্য সাক্ষাতের পর বলেছিলেন, কোনও রাজনৈতিক কথা নয়৷ সমবয়সি নেতার সুস্থতা কামনা করেন তিনি৷ সেই সৌজন্যের নজির দেখা গেল মুখ্যমন্ত্রীর পদক্ষেপেও৷ আজ মান্নানকে দেখতে গেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বর্ষিয়ান নেতাকে তিনি বলেন, দ্রুত সেরে উঠুন৷ কাজে ফিরতে হবে৷

নোটের চোট ভোলাতে রাজ্য বাজেটে কী কী ঘোষণা অর্থমন্ত্রীর?

রাজ্যে দীর্ঘদিন বিরোধীর ভূমিকা পালন করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সেইসময়ই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বর্ষিয়ান নেতাদের প্রতি সৌজন্যের নিদর্শন রেখেছেন তিনি৷ কখনও জ্যোতি বসুকে প্রণাম করেছেন৷ বর্তমান রাষ্ট্রপতিকে প্রায় অগ্রজের মতো সম্মান করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতির ঐতিহ্য এই সৌজন্য৷ যদিও মাঝেমধ্যেই তার অবনমন হয়েছে৷ এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও যখন বেনজিরভাবে কটূ ভাষায় আক্রমণ করা হয়েছে, তখন সরব হয়েছে বিভিন্নমহল৷  মাঝেমধ্যেই এরকম ঘটনা ঘটতে থাকে৷ সাম্প্রতিক অতীতেও এরকম বহু নিদর্শন আছে৷ তবু সেসব ছাপিয়ে রাজ্যের রাজনীতির সারটুকু যেন আজ আরও একবার তুলে ধরলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে